অনুষ্ঠানে তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ বলেন, ‘প্রোগ্রামিং হচ্ছে আগামী দিনের ভাষা। আজকের প্রোগ্রামাররাই ভবিষ্যতে প্রযুক্তি বিশ্বকে নেতৃত্ব দেবেন। তাই আমাদের দেশে বেশি বেশি প্রোগ্রামার তৈরি করতে হবে। প্রোগ্রামার তৈরির জন্য সরকার এরই মধ্যে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। আমি আশা করি, প্রোগ্রামাররা তাঁদের কোড বা প্রোগ্রাম সমাজ ও মানবতার কল্যাণে ব্যবহার করবেন।’

এবারই প্রথম প্রোগ্রামিংয়ের বিশ্বকাপখ্যাত ইন্টারন্যাশনাল কলেজিয়েট প্রোগ্রামিং কনটেস্টের (আইসিপিসি) চূড়ান্ত আসর (ওয়ার্ল্ড ফাইনালস) আয়োজন করছে বাংলাদেশ। আর তাই এ আয়োজনের স্বপ্নদ্রষ্টা প্রয়াত জাতীয় অধ্যাপক ও ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকের সাবেক উপাচার্য ড. জামিলুর রেজা চৌধুরীকে সম্মাননা দিয়েছে আইসিপিসি ফাউন্ডেশন। প্রয়াত জামিলুর রেজা চৌধুরীর স্ত্রী সেলিনা নওরোজ চৌধুরী এ সম্মাননা গ্রহণ করেন।

আইসিপিসি ওয়ার্ল্ড ফাইনালস ঢাকার পরিচালক এবং ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিকের উপাচার্য কামরুল আহসান বলেন, ‘প্রোগ্রামিং আজ সমস্যা সমাধানের অন্যতম মাধ্যম। ১৯৯৮ সাল থেকে প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে আমরা প্রতিবছরই ভালো করেছি।’

আইসিপিসি ফাউন্ডেশনের সভাপতি এবং আইসিপিসির নির্বাহী পরিচালক ড. উইলিয়াম বি পাউচার বলেন, বাংলাদেশে প্রোগ্রামিংয়ের আন্তর্জাতিক এ আয়োজন তরুণদের মধ্যে প্রোগ্রামিং শেখার আগ্রহ বৃদ্ধি করবে। শুধু তা-ই নয়, বিশ্বের কাছে বাংলাদেশের সুনামও বাড়বে। স্বাগতিক দেশ হিসেবে বাংলাদেশের আতিথেয়তারও প্রশংসা করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন আইসিপিসির উপনির্বাহী পরিচালক ও আইসিপিসি ওয়ার্ল্ড ফাইনালস কনটেস্টের পরিচালক ড. মাইকেল জে ডোনাহু, আইসিটি বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব এন এম জিয়াউল আলম, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের (বিসিসি) নির্বাহী পরিচালক রণজিৎ কুমার প্রমুখ।

উল্লেখ্য, আগামী বৃহস্পতিবার আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টার বসুন্ধরায় ৪৫তম আইসিপিসির চূড়ান্ত আসর (ওয়ার্ল্ড ফাইনালস) অনুষ্ঠিত হবে। আইসিপিসি ফাউন্ডেশন, বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিল (বিসিসি) এবং ইউনিভার্সিটি অব এশিয়া প্যাসিফিক (ইউএপি) আয়োজিত এ প্রতিযোগিতায় ৪৭টি দেশ থেকে ১৩৭টি দল অংশ নিচ্ছে।