দ্য নিউ হিউম্যানিটারিয়ান ও আল-জাজিরার অনুসন্ধান প্রকাশের পর অভিযোগের বিষয়ে জরুরি প্রতিবেদন চাইলেন জাতিসংঘ মহাসচিব। জবাবদিহি নিশ্চিতে জাতিসংঘের কর্মকর্তাদের গৃহীত পদক্ষেপের বিস্তারিত তথ্য চেয়েছেন তিনি।

দক্ষিণ সুদানের ভয়াবহ গৃহযুদ্ধ থেকে বাঁচতে পালিয়ে আসা লোকদের আশ্রয় দিতে দেশটির মালাকাল শহরে ২০১৩ সালের শেষভাগে শিবিরটি চালু হয়। শিবিরটিতে বর্তমানে প্রায় ৩৭ হাজার লোক রয়েছে।

শিবিরে সাহায্যকর্মীদের দ্বারা সংঘটিত যৌন নির্যাতনের অভিযোগ প্রথম প্রকাশিত হয় ২০১৫ সালে। পরবর্তী সময়ে শিবিরে এই সমস্যার মাত্রা আরও বাড়ে বলে অনুসন্ধানে উঠে এসেছে।

অনুসন্ধানী প্রতিবেদনটি গতকাল বৃহস্পতিবার প্রকাশিত হয়। প্রতিবেদনটি প্রকাশের পর একটি বিবৃতি দিয়েছেন জাতিসংঘ মহাসচিবের মুখপাত্র। তিনি বলেন, দক্ষিণ সুদানে জাতিসংঘ পরিচালিত শিবিরে যৌন নির্যাতন-নিপীড়নের অভিযোগ দেখে আন্তোনিও গুতেরেস হতভম্ব হয়েছেন। এসব ঘটনা ভুক্তভোগী ও তাদের পরিবারের সদস্যদের অপূরণীয় ক্ষতি করেছে।

বিবৃতিতে বলা হয়, জাতিসংঘপ্রধান দক্ষিণ সুদানে সংস্থার কার্যক্রমজুড়ে যৌন হয়রানি মোকাবিলা ও জবাবদিহি নিশ্চিতে জাতিসংঘ কান্ট্রি টিমের নেওয়া তাৎক্ষণিক পদক্ষেপের বিষয়ে একটি জরুরি প্রতিবেদন চেয়েছেন।

আফ্রিকা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন