স্পিকার তাঁর ঘোষণায় বলেন, ‘শ্রীলঙ্কার সংবিধানের ৩৮.১ (বি) ধারা অনুযায়ী আমি মহামান্য প্রেসিডেন্ট গোতাবায়া রাজাপক্ষের পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছি।’

ঘোষণা অনুযায়ী, ১৪ জুলাই ২০২২ থেকে এ পদত্যাগপত্র কার্যকর হচ্ছে। এর মধ্য দিয়ে প্রেসিডেন্ট তাঁর দায়-দায়িত্ব থেকে আইনত পদত্যাগ করেছেন। এমন পরিস্থিতিতে নতুন প্রেসিডেন্ট নিয়োগ দেওয়ার সাংবিধানিক প্রক্রিয়া শুরু হবে। এ সাংবিধানিক প্রক্রিয়া শেষ না হওয়া পর্যন্ত সংবিধান অনুযায়ী প্রধানমন্ত্রী প্রেসিডেন্টের কার্যক্রম ও দায়িত্বগুলো পালন করবেন। সে সময় প্রেসিডেন্টের কার্যালয় পরিচালনার ক্ষমতা তাঁর কাছে থাকবে।

স্পিকার আরও বলেন, প্রেসিডেন্ট নির্বাচন নিয়ে আয়োজিত এক বৈঠকে দলীয় নেতারা বলেছেন, ১৯৮১ সালের স্পেশাল প্রভিশনস অ্যাক্ট-২ এবং সংবিধানের ৪০ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত করা হবে। সফলভাবে ও দ্রুততার সঙ্গে এ প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার ইচ্ছা আছে আমার।

এ ব্যাপারে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করার জন্য বিভিন্ন দলের নেতা, রাষ্ট্রীয় কর্মকর্তা ও নিরাপত্তা বাহিনীগুলোর প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন স্পিকার।

পার্লামেন্ট সদস্যরা অবাধে যেন পার্লামেন্টে উপস্থিত হতে পারেন এবং নিজেদের মতো কাজ করতে পারেন তার জন্য শান্তিপূর্ণ পরিবেশ নিশ্চিত করতে জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি।

মাহিন্দা ইয়াপা আবেবর্ধনে আশা করেন, এ ধরনের পরিবেশ পেলে সংশ্লিষ্টদের সহযোগিতায় সাত দিনের মধ্যে এ প্রক্রিয়া শেষ করতে পারবেন তিনি। আগামীকাল শনিবার পার্লামেন্টে উপস্থিত হওয়ার জন্য সব সদস্যের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন স্পিকার।

এশিয়া থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন