২০২০ সালে করোনা মহামারি শুরু হওয়ার পর চীন বিদেশি পর্যটকদের জন্য সীমান্ত বন্ধ করে দেয়। তবে বৈধ ভিসা আছে শুধু এমন নির্দিষ্ট বিদেশি নাগরিকদের প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হয়।

করোনার অতি সংক্রামক অমিক্রন ধরন ছড়িয়ে পড়া ঠেকাতে সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোয় কোভিড বিধিনিষেধ লক্ষণীয়ভাবে কঠোর করে চীন সরকার। সেপ্টেম্বরে একাধিক বৃহৎ শহরে পুরোপুরি কিংবা আংশিক লকডাউন দেওয়া হয়।

নতুন খসড়া বিধিমালা অনুযায়ী, সীমান্তের পর্যটন স্থাপনাগুলো ভ্রমণের সুযোগ পাবেন বিদেশি পর্যটকেরা। তবে সেটা হতে হবে ট্যুর গ্রুপের মাধ্যমে।

এদিকে ভ্রমণকারীদের জন্য চীনের যে কোয়ারেন্টিন বাধ্যবাধকতা রয়েছে, পর্যটকদের ক্ষেত্রেও সেটা প্রযোজ্য কি না, সে বিষয়ে বিধিমালায় স্পষ্ট করে কিছু বলা হয়নি। বর্তমান বাধ্যবাধকতা অনুযায়ী, চীনে গেলে এক সপ্তাহের হোটেল কোয়ারেন্টিন এবং তিন দিনের ‘হোম অবজারভেশনে’ থাকতে হয়।

রাশিয়া, ভারত, পাকিস্তান, আফগানিস্তান, নেপাল, ভুটান, মঙ্গোলিয়া, ভিয়েতনাম, লাওস, মিয়ানমারসহ ১৪ দেশের সঙ্গে চীনের সীমান্ত রয়েছে।

চীন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন