default-image

জনসন অ্যান্ড জনসনের তৈরি করোনার টিকা ব্যবহারে কিছু মানুষের দেহে রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এসব ঘটনা পর্যালোচনা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইউরোপের ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইউরোপিয়ান মেডিসিনস এজেন্সি। গতকাল শুক্রবার সংস্থাটি এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রে চার ব্যক্তির দেহে জনসনের তৈরি করোনার টিকা দেওয়ার পর রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়ার তথ্য প্রকাশিত হয়েছে। জনসন অ্যান্ড জনসন বলছে, কোভিড-১৯ টিকা দেওয়ার পর রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়ার কিছু  ব্যতিক্রমধর্মী ঘটনা সম্পর্কে তারা অবগত। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় তথ্য ও উপাত্ত সংগ্রহ করা হচ্ছে এবং সেগুলো ইউরোপের নিয়ন্ত্রক সংস্থাকে দেওয়া হবে। এ লক্ষ্যে ইউরোপিয়ান মেডিসিনস এজেন্সির সঙ্গে একযোগে কাজ করছে জনসন অ্যান্ড জনসন।

ইমেইলে পাঠানো এক বিবৃতিতে জনসন অ্যান্ড জনসন আরও বলেছে, 'বর্তমান পরিস্থিতিতে জনসনের তৈরি কোভিড-১৯ টিকার সঙ্গে রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়ার সম্পর্ক এখনও প্রতিষ্ঠিত হয়নি।'

বিজ্ঞাপন

রয়টার্স বলছে, যুক্তরাষ্ট্রের যে চার ব্যক্তির দেহে রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়ার খবর জানা গেছে, ওই ব্যক্তিদের দেহে প্লাটিলেটের সংখ্যাও কমে গেছে। ইউরোপিয়ান মেডিসিনস এজেন্সি বলছে, এর আগে এ টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগের সময়ও এক ব্যক্তির দেহে রক্ত জমাট বেঁধে গিয়েছিল এবং ওই ব্যক্তির পরে মৃত্যু হয়েছিল।

যুক্তরাষ্ট্রের ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন বলছে, কিছু ক্ষেত্রে যেসব ব্যক্তির দেহে প্লাটিলেটের সংখ্যা কম থাকে, তাদের দেহে রক্ত জমাট বেঁধে যাওয়ার ঘটনা ঘটতে দেখা যাচ্ছে। তবে এ ঘটনা নানা শারীরিক ত্রুটির কারণে হয়ে থাকতে পারে। এ বিষয়ে আরও গবেষণা ও পর্যালোচনার প্রয়োজন।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন