তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান বলেছেন, দুষ্কৃতকারীদের শাস্তি দেওয়া হবে। বিবিসি বলেছে, বিস্ফোরণস্থল এলাকায় ব্যাপক পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পুলিশ এলাকাটি ঘিরে রেখেছে। সেখানে অ্যাম্বুলেন্স আসা–যাওয়া করছে। আকাশে হেলিকপ্টার চক্কর দিচ্ছে।

ওই সড়কের দোকানিরা দোকানপাট বন্ধ করে দিয়েছেন। বিস্ফোরণের ঘটনাটি ওই এলাকার মানুষের কাছে বড় ধরনের ধাক্কা।

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী সিমেল ডেনিজিস বিস্ফোরণের ঘটনাস্থল থেকে ৫০ মিটার দূরে ছিলেন। তিনি বলেন, ‘তিন থেকে চার ব্যক্তিকে পড়ে থাকতে দেখেছি। মানুষ ভয় পেয়ে দৌড়াচ্ছিল। কালো ধোঁয়া উড়ছিল। প্রচণ্ড জোরে শব্দ হয়েছিল। কানে প্রায় তালা ধরে গিয়েছিল।’

এর আগেও ২০১৬ সালে এক আত্মঘাতী হামলাকারী ওই সড়কে হামলার চেষ্টা করেছিল।