মার্ক মিলে বলেন, ‘ইউক্রেনের দিকের হতাহতের সংখ্যাটাও সম্ভবত একই।’
চলমান রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধে উভয় পক্ষে হতাহতের যে পরিসংখ্যান মার্ক মিলে দিয়েছেন, তা স্বাধীনভাবে যাচাই করে নিশ্চিত করতে পারেনি এএফপি।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের নির্দেশে ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করে রাশিয়া। আট মাসের বেশি সময় ধরে এই যুদ্ধ চলছে। যুদ্ধে হতাহতের সংখ্যা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে সবচেয়ে সুনির্দিষ্ট তথ্য গতকালই পাওয়া গেল।

মার্ক মিলে আরও বলেন, যুদ্ধ অবসানের বিষয়ে আলোচনার সুযোগ রয়েছে। রাশিয়া বা ইউক্রেন কারও পক্ষেই এই যুদ্ধে সামরিক বিজয় অর্জন সম্ভব না–ও হতে পারে।
মার্ক মিলে বলেন, প্রকৃত অর্থে সামরিক উপায়ে যে বিজয় অর্জন সম্ভব না–ও হতে পারে, বিষয়টি সব পক্ষের বুঝতে হবে। তাই যুদ্ধের অবসানে অন্য উপায় অবলম্বন করতে হবে।

মার্ক মিলে বলেন, ‘এখানে...একটি সুযোগ আছে, আলোচনার একটি সুযোগ আছে।’
সম্প্রতি খবর বেরিয়েছে, রাশিয়া–ইউক্রেন যুদ্ধ আরও কয়েক বছর চলার আশঙ্কা করছে যুক্তরাষ্ট্র। এ পরিস্থিতিতে ইউক্রেনকে কৌশলী হতে পরামর্শ দিয়েছে বাইডেন প্রশাসন। যুক্তরাষ্ট্র গোপনে ইউক্রেনীয় নেতাদের উৎসাহিত করছে, কিয়েভ যেন রাশিয়াকে ইঙ্গিত দেয় যে তারা শান্তি আলোচনায় আগ্রহী। এমনকি ইউক্রেন যুদ্ধে পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহারের ঝুঁকি কমাতে রাশিয়ার সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের অনানুষ্ঠানিক আলোচনা চলছে বলেও খবর বেরিয়েছে।