কায়রোতে লাভরভ বলেন, ‘ইউক্রেনের গণবিরোধী ও ইতিহাসবিরোধী সরকারের হাত থেকে নিজেদের মুক্ত করতে দেশটির জনগণকে আমরা অবশ্যই সহায়তা করব। রাশিয়া ও ইউক্রেনের জনগণ ভবিষ্যতে একসঙ্গে বসবাস করবে।’

এর আগে গত এপ্রিলে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডেকে সাক্ষাৎকার দিয়েছিলেন লাভরভ। সেখানে তিনি বলেছিলেন, ইউক্রেনে সরকার পরিবর্তনের কোনো পরিকল্পনা নেই রাশিয়ার।

ইউক্রেনে রাশিয়ার হামলা শুরুর পর ইতিমধ্যেই পাঁচ মাস গড়িয়েছে। গত ২৪ ফেব্রুয়ারি হামলা শুরুর সময় রাশিয়া একে ‘বিশেষ সামরিক অভিযান’ বলে উল্লেখ করেছিল। তখন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছিলেন, ইউক্রেনকে ‘নিরস্ত্রীকরণ ও নাৎসি প্রভাব’মুক্ত করতে তাঁদের এই অভিযান। তবে রাশিয়ার এই দাবি ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছিল ইউক্রেন ও পশ্চিমারা।

ইউরোপ থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন