গ্রামটির মালিকানা সংস্থা রয়্যাল ইনভেস্টের কর্মকর্তা রনি রদ্রিগেজ বলেছেন, মালিকের এখানে একটি হোটেল করার স্বপ্ন ছিল। কিন্তু এটি হয়নি। প্রতিষ্ঠানটির ওয়েবসাইটে গ্রামটি বিক্রির কারণ হিসেবে এর মালিক বলেছেন, ‘আমি শহরে থাকি। গ্রামটি দেখাশোনা করা আমার পক্ষে সম্ভব নয়। তাই এটা বিক্রি করতে হচ্ছে।’

এরই মধ্যে রাশিয়া, ফ্রান্স, বেলজিয়াম, যুক্তরাজ্যসহ বেশ কিছু দেশ থেকে ৩০০ জনের বেশি মানুষ এ গ্রাম কিনতে আগ্রহ দেখিয়েছেন। একজন কিছু অর্থ অগ্রিমও দিয়ে বুকিং দিয়েছেন।

১৯৫০ সালের দিকে স্পেনের বিদ্যুৎ উৎপাদন সংস্থা ইবারডুরো জলাধার তৈরি করা শ্রমিকদের পরিবারের জন্য এই গ্রাম তৈরি করেছিল। তবে ওই নির্মাণকাজ শেষ হওয়ার পর বাসিন্দারা সরে যেতে থাকেন। ১৯৮০ সালের শেষ দিকে গ্রামটি পরিত্যক্ত হয়ে যায়।

গ্রামটি যেখানে অবস্থিত, সে এলাকা ‘শূন্য স্পেন’ হিসেবে পরিচিত। গ্রামীণ এলাকা হওয়ায় শহরের মতো অনেক সেবা এখানে পাওয়া যায় না। তবে গ্রাম বিক্রির খবর ছড়ানোর পর থেকে এখানে পর্যটক বেড়ে গেছে।

এর আগেও গ্রামটি বিক্রির জন্য চেষ্টা করা হয়েছিল। তখন এর দাম চাওয়া হয়েছিল ৬৫ লাখ মার্কিন ডলার। কিন্তু ওই দামে ক্রেতা পাওয়া যায়নি। কিন্তু এখন গ্রামটির যে দাম চাওয়া হয়েছে, তাতে বার্সেলোনা ও মাদ্রিদের মতো শহরে সর্বোচ্চ এক বেডরুমের বাসা কেনা যাবে।