ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট বলেন, এটি বিশ্বের কাছে আরও প্রমাণ করে যে রাশিয়া পরাজয়ের পথে রয়েছে। মস্কো তার সন্ত্রাসের সহযোগী হিসেবে অন্যদের টেনে আনার চেষ্টা করছে।

ইরানের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করার বিষয়ে ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দিমিত্রো কুলেবার কাছ থেকে গতকাল একটি প্রস্তাব এসেছে। অবশ্য এই প্রস্তাব বাস্তবায়নের বিষয়ে জেলেনস্কি কিছু বলেননি।

তবে রাশিয়ার ইরানি ড্রোন ব্যবহারের কথা উল্লেখ করে জেলেনস্কি বলেন, ‘এ ব্যাপারে আমরা অবশ্যই একটি উপযুক্ত আন্তর্জাতিক প্রতিক্রিয়া নিশ্চিত করব।’

কিয়েভ ও তার পশ্চিমা মিত্ররা অভিযোগ করছে, সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে ইউক্রেনে হামলায় ইরানের তৈরি ড্রোন ব্যবহার করছে মস্কো।

তবে ক্রেমলিন গতকাল বলেছে, রুশ সেনাবাহিনী এ ধরনের অস্ত্র ব্যবহার করছে, এমন কোনো তথ্য তাদের কাছে নেই।

অন্যদিকে তেহরান বলেছে, ইরান রাশিয়াকে ড্রোন সরবরাহ করছে, এই দাবি ভিত্তিহীন। এই ভিত্তিহীন দাবির বিষয়টি স্পষ্ট করতে কিয়েভের সঙ্গে আলোচনার জন্য তেহরান প্রস্তুত।