বিজ্ঞাপন

নিরাপত্তার কারণে মামলাটি পশ্চিমবঙ্গ থেকে ভারতের অন্য কোনো রাজ্যে স্থানান্তর করার আরজি জানিয়ে কলকাতা হাইকোর্টে করা সিবিআইয়ের আবেদনে নতুন করে এই তিনজনকে পক্ষ করা হলো।

আবেদনে বলা হয়, গত সোমবার এই মামলার আসামিদের গ্রেপ্তারকে কেন্দ্র করে রাজ্যে ত্রাস সৃষ্টি করা হয়েছিল। মমতাসহ অন্যদের উপস্থিতিতেই এই ত্রাস সৃষ্টি করা হয়। একই কারণে গ্রেপ্তার হওয়া আসামিদের হেফাজতে নেওয়ার জন্য সোমবার আদালতে আবেদন করতে পারেনি সিবিআই।

সোমবার এই মামলায় মন্ত্রী–নেতা ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, মদন মিত্র ও শোভন চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেপ্তার করে সিবিআই। তাঁরা এখন কারাগারে।

২০১৬ সালে রাজ্য বিধানসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে তৃণমূল নেতা–মন্ত্রীদের ঘুষ নেওয়ার একটি কেলেঙ্কারি ফাঁস হয়। কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে ২০১৭ সালের মার্চে এই নারদা কেলেঙ্কারি মামলার তদন্তের ভার দেওয়া হয় কেন্দ্রীয় তদন্ত সংস্থা সিবিআইয়ের হাতে।

সেই মামলায় আসামি করা হয় পশ্চিমবঙ্গের তৎকালীন চার মন্ত্রীসহ কয়েকজন তৃণমূল নেতাকে। কিন্তু মন্ত্রীদের বিরুদ্ধে মামলা চালাতে গেলে রাজ্যপালের অনুমতির প্রয়োজন হয়। সেই লক্ষ্যে সিবিআই রাজ্যপালের কাছে এই মামলা চালানোর অনুমতি চায়। দীর্ঘদিন পর রাজ্যপাল এই অনুমতি দেয়।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন