বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি আজ বৃহস্পতিবার এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, গাড়িচাপায় কৃষকদের হত্যার ঘটনায় তদন্ত কমিশন গঠন করেছেন উত্তর প্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ সরকার। এলাহাবাদ হাইকোর্টের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি প্রদীপ কুমার শ্রীবাস্তবকে তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। দুই মাসের মধ্যে তাঁকে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে হবে। প্রতিবেদন পাওয়ার পর দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানিয়েছে উত্তর প্রদেশ সরকার।

এদিকে এ ঘটনায় পুলিশের করা মামলার সবশেষ পরিস্থিতি ও এখন পর্যন্ত কয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, সে বিষয়ে রাজ্য সরকারের কাছে হালনাগাদ তথ্য জানতে চেয়েছেন ভারতের সুপ্রিম কোর্ট। এক দিনের মধ্যে এসব তথ্য সুপ্রিম কোর্টকে জানাতে হবে। আগামীকাল শুক্রবার আবারও এ বিষয়ে শুনানি হবে।

সুপ্রিম কোর্টের কাছে জানতে চাওয়ার পর উত্তর প্রদেশ পুলিশ সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছে, গাড়িচাপায় কৃষক হত্যার ঘটনায় ইতিমধ্যে ১৩ জনের নামে মামলা করা হয়েছে। গ্রেপ্তার হয়েছে আশিস পান্ডে ও লবকুশ রানা নামে দুজন। তাঁরা মন্ত্রিপুত্র আশিস মিশ্রের ঘনিষ্ঠ হিসেবে পরিচিত।

এ বিষয়ে ভারতীয় পুলিশের লক্ষ্ণৌ জোনের ইন্সপেক্টর জেনারেল এনডিটিভিকে বলেন, ‘আমরা কাউকে আড়াল করার চেষ্টা করছি না। আইন সবার জন্য একই। কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে, এ ব্যাপারে আমরা নিশ্চয়তা দিতে পারি।’
এদিকে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী অজয় মিশ্রর পদত্যাগ ও আশিস মিশ্রর বিচারের দাবিতে রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দকে চিঠি লিখেছে ভারতীয় কৃষকদের সংগঠন সংযুক্ত কিশান মোর্চা।

কৃষক হত্যার ঘটনায় গত রোববার থেকে উত্তাল রয়েছে উত্তর প্রদেশ। ওই দিন আশিস মিশ্র গাড়িচাপা দিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষকবিরোধী আইন বাতিলের দাবিতে আয়োজিত বিক্ষোভে অংশ নেওয়া কৃষকদের হত্যা করেন বলে অভিযোগ উঠেছে। তবে আশিস ও তাঁর বাবা অজয় মিশ্র এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।
এ ঘটনার প্রতিবাদে নিহত ব্যক্তিদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করতে গত সোমবার লখিমপুর খেরির উদ্দেশে রওনা দেন কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। মাঝপথ থেকে তাঁকে আটক করে পুলিশ। পরদিন প্রিয়াঙ্কাকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। এরপরই লাখিমপুর খেরির উদ্দেশে রওনা হন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী।

রাহুল বুধবার রাতে লখিমপুর খেরিতে গিয়ে নিহত দুই কৃষকের স্বজনের সঙ্গে দেখা করেন। এর আগে প্রিয়াঙ্কাকে মুক্তি দেওয়া হয়। তিনিও ভাইয়ের সঙ্গে যোগ দেন। এ সময় তাঁদের সঙ্গে ছিলেন ছত্তিশগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভুপেশ বাঘেল, পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী চরণজিৎ সিং চান্নিসহ কংগ্রেসের অন্য নেতারা।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন