ইতিমধ্যে বর্তমান মন্ত্রিসভার দুই সদস্য সুব্রত মুখার্জি ও সাধন পান্ডে প্রয়াত হওয়ায় ওই দুই পদে কাউকে নিয়োগ করা হয়নি। সেখানেও নতুন করে নিয়োগ করা হবে। তা ছাড়া শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে বহিষ্কার করায় সেই শূন্য পদেও আজ নিয়োগ করা হবে নতুন কাউকে। এদিকে বিধানসভায় থাকা পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের কক্ষটি তালা লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে।

মন্ত্রিসভায় নতুন মুখ হিসেবে আসছেন সংগীতশিল্পী বাবুল সুপ্রিয়, পার্থ ভৌমিক, উদয়ন গুহ, স্নেহাশীষ চক্রবর্তী, প্রদীপ মজুমদার, বিপ্লব রায় চৌধুরী, সত্যজিৎ বর্মণ ও তজমুল হোসেন। ইতিমধ্যে তাঁদের নামের তালিকা রাজভবনে চলে গেছে। মন্ত্রিসভা থেকে বাদ পড়তে পারেন সৌমেন দাস মহাপাত্র, পরেশ অধিকারী, রত্না দে নাগ প্রমুখ।

পশ্চিমবঙ্গের স্কুল সার্ভিস কমিশন বা এসএসসির শিক্ষক নিয়োগে ব্যাপক দুর্নীতির কারণে ইতিমধ্যে সাবেক শিক্ষা, শিল্প ও বাণিজ্যমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় গত ২৩ জুলাই এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (ইডি) হাতে গ্রেপ্তার হন। আর এই নিয়োগে সহযোগিতার অপরাধে পার্থর ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত মডেল তারকা অর্পিতা মুখার্জিও গ্রেপ্তার হন। সেই থেকে তাঁরা এখনো ইডির হেফাজতে কারাবন্দী।

আজ পার্থ-অর্পিতা মামলার ইডি হেফাজত শেষে শুনানির দিন। এ মামলায় গ্রেপ্তার হওয়ার পর সিবিআইয়ের বিশেষ আদালতে হাজির করা হলে আদালত পার্থ ও অর্পিতাকে ১০ দিনের জন্য ইডির হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেন। সেই ইডির হেফাজত শেষ হয়ে যাওয়ায় আজ আবার তাঁদের আদালতে হাজির করা হচ্ছে। ইডির সূত্রে বলা হয়েছে, ইডির আইনজীবীরা আজ তাঁদের হেফাজতের মেয়াদ বাড়ানোর জন্য আবেদন করবেন।

এই পার্থ-অর্পিতাকাণ্ড নিয়ে উত্তাল রাজ্যের রাজনীতি। মুখ্যমন্ত্রী মমতার ‘সৎ রাজনীতির’ প্রচার পার্থকাণ্ডের পর বড় আঘাত খেয়েছে। বিপাকে পড়েছে ক্ষমতাসীন তৃণমূল কংগ্রেস।

রাজ্যের বিধানসভার বিরোধী দলের নেতা বিজেপি বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী গতকাল দুপুরে দিল্লিতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর সঙ্গে সংসদ ভবনে দেখা করেন।

সেখানে তিনি জানান, পার্থকাণ্ডে শুধু পার্থ ও অর্পিতা জড়িত নন, এতে জড়িয়ে আছেন শাসক তৃণমূল কংগ্রেসের সংসদ সদস্য, বিধায়ক, মন্ত্রীসহ শতাধিক নেতা-কর্মী। শুভেন্দু অধিকারী জানান, এ কাণ্ডের সঙ্গে জড়িত তৃণমূলের শতাধিক নেতা-কর্মীর একটি তালিকাও তিনি তুলে দিয়েছেন অমিত শাহর হাতে।

ভারত থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন