আগামীকাল সোমবার রানির শেষকৃত্য হওয়ার কথা। শেষকৃত্যে যোগ দিতে যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। কিন্তু এ আমন্ত্রণ নিয়ে আপত্তি তুলে মানবাধিকার গোষ্ঠীগুলো সমালোচনা করেছে। এ অবস্থায় জানা যাচ্ছে, রানির শেষকৃত্যে হয়তো থাকছেন না যুবরাজ।

পশ্চিমা গোয়েন্দা সংস্থার অভিযোগ, ২০১৮ সালে সৌদি সাংবাদিক জামাল খাসোগিকে হত্যার পেছনে সৌদি যুবরাজের হাত আছে। যুবরাজ অবশ্য এ অভিযোগ অস্বীকার করেন।

তুরস্কের ইস্তাম্বুলে সৌদি কনস্যুলেটে সাংবাদিক জামাল খাসোগি হত্যার পর থেকে সৌদি যুবরাজ যুক্তরাজ্য সফর করেননি।

এ সপ্তাহে লন্ডনে সৌদি আরবের দূতাবাসের পক্ষ থেকে নিশ্চিত করা হয়েছিল যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমান রানির শেষকৃত্যে অংশ নেবেন। কিন্তু যুক্তরাজ্যের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ওই সূত্র বলেছে, যুবরাজের পরিবর্তে রানির শেষকৃত্যে অংশ নেবেন সৌদি রাজপরিবারের আরেক জ্যেষ্ঠ সদস্য রাজপুত্র তুর্কি আল–ফয়সাল।    

রানির শেষকৃত্যে অংশ নিতে চীনকে পাঠানো আমন্ত্রণপত্র নিয়েও বিতর্ক তৈরি হয়েছে। কারণ চীনের জিনজিয়াং প্রদেশে সংখ্যালঘু উইঘুরসহ মুসলিম জনগোষ্ঠীর ওপর বেইজিংয়ের চালানো দমনপীড়ন। তবে চীন বলেছে, রানির শেষকৃত্যে অংশ নিতে দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্ট ওয়াং কিশানকে পাঠাবে তারা।

মধ্যপ্রাচ্য থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন