বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বিভিন্ন বিষয়ে পাকিস্তান সরকারের সমালোচনা করেন মানবাধিকারকর্মী রেহাম খান। অপর একটি টুইটে তিনি লেখেন, ‘এ জন্য (গাড়িতে আগুন দেওয়া) সরকারের দায় নেওয়া উচিত।’ তিনি আরও লেখেন, ‘আমি পাকিস্তানের একজন সাধারণ নাগরিকের মতোই জীবনযাপন বেছে নিয়েছি, আর তাঁদের মতো করেই মরতে চাই। মহাসড়কে এ ধরনের হামলা কাপুরুষোচিত ঘটনা। এ জন্য তথাকথিত সরকারের দায় নেওয়া উচিত। দেশের জন্য আমি গুলি খেতেও রাজি।’

রেহাম খান বলেন, তিনি নিজের জীবনের জন্য ভয় পান না। তাঁর জন্য যাঁরা কাজ করছেন তাঁদের নিয়েই তাঁর উদ্বেগ। আগুন ধরানোর সময় রেহাম খানের কর্মীর কিছু হয়েছে কি না, জানতে চাইলে তিনি বলেন, তাঁরা দুজনই সুস্থ্ ও নিরাপদ আছেন। কিন্তু তাঁরা খুবই রাগান্বিত ও ভীত।

গাড়িতে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় স্থানীয় থানায় অভিযোগ করতে গেলেও সেটি নিয়ে গড়িমসি করা হয় বলে অভিযোগ করেন রেহাম খান। বিষয়টি নিয়ে সোমবার সকাল নয়টার দিকে করা টুইটে তিনি লেখেন, ‘চিন্তা করা যায়, এখানে প্রক্রিয়াগুলো কত ধীর। সারা রাত জেগে থাকার পরও এখন (সকাল ৯টা) পুলিশ ভুক্তভোগীদের (আমাদের) প্রশ্ন করেই যাচ্ছে।’

ইসলামাবাদের মাস কলোনি থানায় দাখিল করা অভিযোগের একটি কপিও রেহাম টুইটারে শেয়ার করেছেন।

পাকিস্তান থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন