default-image

পাকিস্তান সেনাবাহিনীর তৎকালীন প্রধানের বিরুদ্ধে নির্বাচনে কারচুপি ও ইসলামাবাদে ‘পুতুল সরকার’ বসানোর অভিযোগ করায় দেশটির সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের কঠোর সমালোচনা করেছেন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। বার্তা সংস্থা পিটিআই এ তথ্য জানিয়েছে।

গতকাল শনিবার নওয়াজের ওই সমালোচনা করেন ইমরান। তার আগের দিন শুক্রবার পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশে এক বিক্ষোভ সমাবেশে ভার্চ্যুয়ালি যোগ দিয়ে নওয়াজ অভিযোগ করেন, তাঁর সরকার উৎখাত করেছিলেন সেনাবাহিনীর তৎকালীন প্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া। বিচার বিভাগকে চাপে রাখা এবং ২০১৮ সালের নির্বাচনের মাধ্যমে ইমরান খানকে প্রধানমন্ত্রীর পদে বসানোর পেছনেও সেনাবাহিনীর হাত রয়েছে।

নওয়াজ পাকিস্তান মুসলিম লিগের (পিএমএল-এন) সর্বোচ্চ নেতা। দুর্নীতির অভিযোগে ২০১৭ সালে দেশটির সুপ্রিম কোর্টের আদেশে তিনি ক্ষমতা থেকে অপসারিত হন।

বিজ্ঞাপন

২০১৮ সালের নির্বাচনে হস্তক্ষেপের মাধ্যমে ইমরান খানের বিজয় নিশ্চিত করার জন্য এই প্রথম দেশটির সেনাবাহিনীর তৎকালীন প্রধানের নাম মুখে নিয়ে সরাসরি অভিযোগ করলেন নওয়াজ। আগে তিনি এ ব্যাপারে আকারে-ইঙ্গিতে অভিযোগ করছিলেন।

২০১৮ সালের নির্বাচনের পর সবচেয়ে বড় ওই বিক্ষোভ সমাবেশে নওয়াজ বলেন, ‘জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া, আপনিই আমাদের সরকারকে উৎখাত করেছিলেন। অথচ সরকার সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করছিল। আপনার ইচ্ছাপূরণে জাতি ও দেশের ক্ষতি করেছিলেন।’ তাঁর সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআইও জড়িত ছিল বলে অভিযোগ করেন নওয়াজ শরিফ।

নওয়াজের এমন অভিযোগের পর পাল্টা জবাব দেন ইমরান। তিনি বলেন, জেনারেল জিয়া-উল হকের জুতা পলিশ করে রাজনীতিতে এসেছিলেন নওয়াজ।

বিজ্ঞাপন

ইমরান বলেন, পাকিস্তানি সেনারা যখন জাতির জন্য তাঁদের জীবন উৎসর্গ করছেন, ঠিক তখন নওয়াজ সেনা নেতৃত্বের বিরুদ্ধে নেতিবাচক ভাষা ব্যবহার করছেন।

গত শুক্রবার পাঞ্জাব প্রদেশে অনুষ্ঠিত সরকারবিরোধীদের বিক্ষোভ সমাবেশকে ‘সার্কাস’ বলে অভিহিত করেন ইমরান।

পাঞ্জাবের গুজরানওয়ালা শহরে অনুষ্ঠিত ওই বিক্ষোভের মধ্য দিয়ে পাকিস্তানের বিরোধী দলগুলোর দেশজুড়ে বিক্ষোভ কর্মসূচি শুরু হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে ইমরানকে উৎখাতের লক্ষ্যে এই কর্মসূচি দিয়েছে তারা। গুজরানওয়ালা স্টেডিয়ামে ওই বিক্ষোভ সমাবেশে যুক্তরাজ্যের লন্ডন থেকে ভিডিও লিংকের মাধ্যমে ভাষণ দেন নওয়াজ।

নওয়াজ চিকিৎসার জন্য গত বছরের নভেম্বরে লন্ডনে গিয়ে আর দেশে ফেরেননি।

মন্তব্য পড়ুন 0