রানা সানাউল্লাহ আরও বলেন, দেশকে এগিয়ে নেওয়ার স্বার্থে ইমরানকে রাজপথ ছেড়ে পার্লামেন্টে ফেরার আহ্বান জানাচ্ছে সরকার। তা না হলে রাজনৈতিক–অর্থনৈতিক সংকটের দায়ভার তাঁকেই (ইমরান) নিতে হবে।

লংমার্চে ইমরানের দাবি, পরবর্তী সাধারণ নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করতে হবে। এ বিষয়ে রানা সানাউল্লাহ বলেন, ‘আমি ইমরান খানকে বলতে চাই, আপনি নির্বাচনের তারিখ জানতে লংমার্চ নিয়ে রাওয়ালপিন্ডিতে আসছেন। কিন্তু এখনই নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করা হবে না। তাই রাজপথের কর্মসূচি বন্ধ করে আলোচনায় বসুন।’

পাকিস্তান ইতিহাসের সবচেয়ে সংকটময় পরিস্থিতিতে রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন পিটিআইয়ের ভাইস চেয়ারম্যান শাহ মাহমুদ কুরেশি। গতকাল তিনি বলেন, ‘পাকিস্তানের এখন একজন প্রকৃত নেতা প্রয়োজন। ইমরান খান সেই নেতা। ইমরানের নেতৃত্বে কাল (শনিবার) পুরো দেশ রাওয়ালপিন্ডিতে একত্র হবে।’

গত এপ্রিলে পাকিস্তানের পার্লামেন্টে এক অনাস্থা ভোটে পতন হয় ইমরান খানের নেতৃত্বাধীন জোট সরকারের। এরপর থেকেই তিনি আগাম নির্বাচনের দাবিতে দেশজুড়ে সভা–সমাবেশ ও লংমার্চ করছেন। আগামী বছর পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচন হওয়ার কথা রয়েছে। চলতি মাসের শুরুর দিকে ওয়াজিরাবাদ শহরে লংমার্চ করার সময় ইমরানের ওপর হামলা হয়। গুলিবিদ্ধ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হতে হয় তাঁকে।