তাঁর এই অভিযোগকে মিথ্যা বলেছেন হকিন্স। হকিন্স টুইটে বলেন, এক সপ্তাহ আগেও তিনি খাবার কর্মসূচি পরিচালনা করেছেন। পরে তিনি পদত্যাগ করেছেন। কারণ, তিনি ইলন মাস্কের প্রাতরাশ ও মধ্যাহ্নভোজ কর্মসূচিতে কাজ করতে চান না। হকিন্স বলেন, টুইটার দিনে তার কর্মীদের মধ্যাহ্নভোজের জন্য ২০ থেকে ২৫ ডলার ব্যয় করে। আর এ সময় কর্মীদের উপস্থিতিও ছিল ২০ থেকে ৫০ শতাংশ।

হকিন্সের টুইটের পাল্টা জবাব দেন মাস্ক। মাস্ক বলেছেন, সান ফ্রান্সিসকোতে টুইটারের সদর দপ্তরে খাবার বাবদ বছরে ১ কোটি ৩০ লাখ ডলার ব্যয় হয়েছে। হকিন্সের টুইটকে উড়িয়ে দিয়ে মাস্ক বলেছেন, ‘মিথ্যা। টুইটার সান ফ্রান্সিসকো সদর দপ্তরে খাবার বাবদ বছরে ১ কোটি ৩০ লাখ ডলার ব্যয় করেছে। রেকর্ড বলছে, এ সময় কর্মী উপস্থিতি ছিল ১০ থেকে ২৫ শতাংশ।

প্রাতরাশ খাওয়ার চেয়ে প্রাতরাশ বানানোর লোক বেশি রয়েছে। তারা রাতের খাবারও পরিবেশন করতে রাজি। কারণ সে সময় ভবনে কেউ থাকে না।’ নিউইয়র্ক টাইমসের এক খবরে বলা হয়েছে, ইলন মাস্ক টুইটারের কর্মীদের বিনা মূল্যে মধ্যাহ্নভোজের ব্যবস্থা বাতিল করে দিয়েছেন।

হকিন্সকে পাল্টা জবাব দেওয়ার আগে গেমারদের ওয়েবসাইট নাইকে গেমারকে পাল্টা টুইট করেন মাস্ক।

তিনি অ্যান্ড্রু ওর্টম্যানসের টুইট শেয়ার করে বলেছিলেন, মাস্ক তিন-চতুর্থাংশ কর্মীকে ছাঁটাই করেছেন ও বাকিদেরও ছাঁটাইয়ের পরিকল্পনা করছেন। ওর্টম্যানস আরও অভিযোগ করেন টুইটার শিগগিরই বিনা মূল্যে মধ্যাহ্নভোজ দেওয়া বন্ধ করবে।

এর উত্তরে মাস্ক টুইটে বলেন, তাঁদের রান্না শেখা উচিত।