Thank you for trying Sticky AMP!!

ফোট্র্যান প্রোগ্রামিং ভাষা

সবার জন্য ফোট্র্যান

১৫ অক্টোবর ১৯৫৬

সবাই যাতে বুঝতে পারে সেজন্য প্রকাশিত হলো ফোট্র্যান প্রোগ্রামিং ভাষার নির্দেশিকা। ফোট্র্যানে প্রোগ্রাম লেখার নির্দেশনা ছিল এতে।

১৫ অক্টোবর ১৯৯৭

এনসেমবল স্টুডিওর তৈরি এজ অব এম্পায়ারস গেম প্রকাশিত হয়।

১৫ অক্টোবর ২০১২

ইন্টারনেটে রেকর্ড করে প্রথমবারের মতো ৮০ লাখ বার দেখা হলো ইউটিউবের একটি ভিডিও।

১৫ অক্টোবর ১৯৫৬
ফোট্র্যান সবার জন্য প্রকাশিত
সবার জন্য প্রকাশিত হলো ফোট্র্যান প্রোগ্রামিং ভাষা। ‘সবার জন্য’ বলা হচ্ছে এ কারণে যে ১৯৫৬ সালের ১৫ অক্টোবর ফোট্র্যান ব্যবহারের প্রথম নির্দেশিকা প্রকাশিত হয়। ফলে কীভাবে ফোট্র্যান দিয়ে প্রোগ্রাম লেখা হবে, তা সবাই বুঝতে পারে। যদিও নির্দেশিকা প্রকাশের ছয় মাস পর ফোট্র্যানের প্রথম কম্পাইলার প্রকাশ পায়। ফোট্র্যানের এই নির্দেশিকা ছিল ৬০ পৃষ্ঠার। প্রশস্ত মার্জিনে বড় বড় হরফে ছাপা ছিল এটি। মূল ফোট্র্যান নির্মাতা দলে ছিলেন জন বাকাস, শেলডন বেস্ট, রিচার্ড গোল্ডবার্গ, লইস মিচেল হেইবট, হারলেন হেরিক, গ্রেস মিচেল, রবার্ট নেলসন, রয় নাট, ডেভিড স্যাইরে, পিটার শেরিড্যান ও আরভিং জিলার।

এজ অব এম্পায়ারস

১৫ অক্টোবর ১৯৯৭
‘এজ অব এম্পায়ারস’ গেম প্রকাশিত
এনসেমবল স্টুডিওর তৈরি এজ অব এম্পায়ারস গেম প্রকাশিত হয়। ইতিহাস আশ্রিত এই সিরিজ ভিডিও গেম রিয়ালটাইম স্ট্র্যাটেজি ঘরানার। এনসেমবল এটি তৈরি করলেও এর প্রকাশক এক্সবক্স স্টুডিও। ২০২১ সালের ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত এই সিরিজের ৯টি গেম প্রকাশিত হয়েছে।

এজ অব এম্পায়ারস–ফোরের একটি দৃশ্য

এজ অব এম্পায়ারসের পটভূমি ইউরোপ, আফ্রিকা ও এশিয়া। প্রস্তর যুগ, লৌহ যুগ থেকে কাহিনি বিস্তৃত হয়েছে। এই সিরিজ গেম বাণিজ্যিক সাফল্য পেয়েছে। এ পর্যন্ত এর আড়াই কোটি কপি বিক্রি হয়েছে। এই সিরিজ গেমের সফলতার কারণ হিসেবে সমালোচকেরা ঐতিহাসিক বিষয় ও খেলোয়াড়দের জন্য সম-সুযোগের কথা বলেন।
মাইক্রোসফট উইন্ডোজ, উইন্ডোজ মোবাইল, প্লেস্টেশন-২, ওএস এক্স, এন-গেজ, নিনটেনডো ডিএস, উইন্ডোজ ফোন, আইওএস, অ্যান্ড্রয়েড, এক্সবক্স ওয়ান ও এক্সবক্স সিরিজ এক্স/এস অপারেটিং সিস্টেমচালিত যন্ত্রে এই গেম খেলা যায়। এই সিরিজের সর্বশেষ গেম এজ অব এম্পায়ারস-ফোর প্রকাশিত হয়েছে ২০২১ সালের ২৮ অক্টোবর।

আকাশে লাফিয়ে পড়েছেন ফেলিক্স বামগার্টনার

১৫ অক্টোবর ২০১২
ইন্টারনেটে ৮০ লাখ বার দেখার রেকর্ড গড়ল ইউটিউবের একটি ভিডিও
ইন্টারনেটে ভিডিও দেখার রেকর্ড ভাঙল ইউটিউব। ১ লাখ ২৮ হাজার ১০০ ফুট উচ্চতা থেকে ফেলিক্স বামগার্টনারের সরাসরি (লাইভ স্ট্রিমিং) ভিডিওটি দেখা হয় ৮০ লাখ বার। ‘এজ অব স্পেস’ নামের স্কাইডাইভার বামগার্টনারের আরও কিছু ভিডিও রয়েছে। সেগুলোও ইউটিউবে রেকর্ডসংখ্যকবার দেখা হয়েছে।

ক্যাপসুল থেকে লাফ দেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বামগার্টনার

বামগার্টনার যুক্তরাষ্ট্রের নিউ মেক্সিকোর আকাশে ১ লাখ ২৮ হাজার ১০০ ফুট (২৪ মাইল, ৩৯ কিলোমিটার) উঁচুতে একটি বিশাল আকারের হিলিয়াম বেলুনের ক্যাপসুল থেকে লাফ দেন। সেটিই সরাসরি দেখা যায় ইউটিউবে। মাটিতে নামতে বামগার্টনারের সময় লেগেছিল ৯ মিনিট। নামের এই গতি ছিল শব্দের গতিবেগের থেকেও বেশি (সুপারসনিক)।
সূত্র: কম্পিউটার হিস্ট্রি ডটওআরজি, কম্পিউটার হোপ, বিবিসি ও উইকিপিডিয়া