কৃতী শিক্ষার্থীরা আসে লালমনিরহাট সদর উপজেলা, আদিতমারী, কালীগঞ্জ, হাতীবান্ধা ও পাটগ্রাম উপজেলা থেকে। সকাল ১০টায় লালমনিরহাট প্রথম আলো বন্ধুসভার সদস্যসহ স্থানীয় আরশী নগর শিল্পীদের পরিবেশনায় জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের শুভ সূচনা হয়। এ সময় লালমনিরহাট জেলা পরিষদ অডিটরিয়াম মিলনায়তনে উপস্থিত সবাই দাঁড়িয়ে জাতীয় সংগীতের সঙ্গে কণ্ঠ মেলান।

লালমনিরহাট প্রথম আলো বন্ধুসভার সহসভাপতি ফারাহ নাজ নাহারের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন প্রথম আলোর লালমনিরহাট জেলা প্রতিনিধি আবদুর রব। অনুষ্ঠানে লালমনিরহাট জেলা উন্নয়ন আন্দোলন পরিষদের আহ্বায়ক সুপেন্দ্র নাথ দত্ত বলেন, প্রথম আলো শুধু আর দশটা সংবাদপত্রের মতো একটা সংবাদপত্র নয়। প্রথম আলো তার চেয়ে বেশি কিছু, যেমন মানবিক সমাজ বিনির্মাণে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে, আজকের এই কৃতী সংবর্ধনাও তার একটি উজ্জ্বল উদাহরণ।

লালমনিরহাট সচেতন নাগরিক কমিটির সাবেক সভাপতি স্বপ্না জামান বলেন, শুধু মেধাবী শিক্ষার্থী হলেই চলবে না, সুন্দর ও পরিচ্ছন্ন সমাজ গড়তে ভালো মানুষও হতে হবে। তাহলে সমাজ থেকে অনিয়ম ও দুর্নীতি দূর করতে অগ্রগতি হবে।

লালমনিরহাটের বিশিষ্ট নারী অধিকার সংগঠক ও কবি ফেরদৌসী বেগম বিউটি বলেন, এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ–৫ প্রাপ্ত কৃতী শিক্ষার্থীদের এখানেই থেমে গেলে চলবে না, সামনের পরীক্ষাগুলোতেও সাফল্যের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে হবে। প্রথম আলোর পড়াশোনা পাতা শিক্ষার্থীদের মেধা বিকাশের সহায়ক ভূমিকা পালন করে, ভবিষ্যতেও করবে।

লালমনিরহাট সরকারি কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক উম্মে তাজ এ জান্নাত বলেন, ‘এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ–৫ প্রাপ্ত কৃতী শিক্ষার্থীদের শিখো–প্রথম আলোর আজকের এই কৃতী সংবর্ধনা দেওয়া তাদের ভবিষ্যতের ভালো ফলাফল অর্জন করতে অনুপ্রেরণা দেবে বলে মনে করি।’

প্রথম আলোর উপসম্পাদক লাজ্জাত এনাব মহছি বলেন, আজকের অনুষ্ঠানের সব বক্তাই বলেছেন কৃতী ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মেধা বিকাশের সঙ্গে সঙ্গে ভালো মানুষও হতে হবে। তাহলে মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত এ স্বাধীন বাংলাদেশ সুন্দর করে গড়ে তুলতে সহজ হবে। তিনি এ সময় উপস্থিত সবাইকে তিন ম—মিথ্যা, মুখস্থ ও মাদককে না বলতে দুই হাত তুলে শপথবাক্য পাঠ করান।

কৃতী শিক্ষার্থী সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অংশ নিতে লালমনিরহাট জেলা শহর থেকে ৮৫ কিলোমিটার দূরের পাটগ্রাম উপজেলা থেকে আসে নুর আল মৃদুল ও সাবিকুর ইসলাম। তাঁরা দুজনই পাটগ্রামের ঐতিহ্যবাহী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান টিএন স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ–৫ প্রাপ্ত কৃতী শিক্ষার্থী। প্রথম আলো তাদের প্রিয় এবং পছন্দের পত্রিকা। তাই সেই পত্রিকার পক্ষ থেকে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অংশ নিতে এক দিন আগে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জের কাকিনায় আত্মীয়ের বাড়িতে ওঠে। আজ সকাল সাড়ে সাতটার দিকে সেখান থেকে সড়কপথে অটোরিকশায় রওনা দিয়ে সকাল সাড়ে আটটায় লালমনিরহাট জেলা পরিষদ অডিটরিয়াম মিলনায়তন চত্বরে এসে উপস্থিত হয়।

লালমনিরহাট মানসিকা ভোকেশনাল থেকে জিপিএ–৫ প্রাপ্ত কৃতী শিক্ষার্থী শারীরিক প্রতিবন্ধী শিমুল মিয়া ক্রাচে ভর করে আসে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে। উচ্ছ্বাস ঝরছিল তাঁর কণ্ঠে। শিমুল বলে, ‘আমার জন্য এ দিনটি অনেক ভালো লাগার একটি দিন। আমি নিজেকে সম্মানিত মনে করি, সবার দোয়া ও আশীর্বাদ কামনা করছি, যেন পরবর্তী পরীক্ষাগুলোতেও এই সাফল্য বজায় রাখতে পারি। প্রথম আলো প্রতিবন্ধীসহ পিছিয়ে পড়াদের জন্য অনেক কিছু করে। তাঁদের পাশে সাহায্যের হাত নিয়ে দাঁড়ায় এমন অনেক প্রতিবেদন পড়েছি।’

অনুষ্ঠানে কৃতী শিক্ষার্থী এবং স্থানীয় লালমনিরহাট জেলা শহরের লোকসংগীত গবেষণা ও চর্চা সংগঠন আরশী নগর বাংলাদেশের শিল্পীদের পরিবেশনায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়। কবিতা আবৃত্তি করেন লালমনিরহাট সদর উপজেলার তিস্তা বালিকা উচ্চবিদ্যালয় থেকে এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ–৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থী সাবিনা আক্তার, পাটগ্রামের বুড়িমারীর আলীমুদ্দিন ছবুর উদ্দিন বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের মারিয়া তাবাচ্ছুম।