বিএনপি পরপর পাঁচবার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন দল দাবি করে মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, এখন বিএনপির তারেক রহমান দুর্নীতিমুক্ত বাংলাদেশ চান। এক দফার আন্দোলন কর্মসূচি দিয়ে এ সরকারের পতন চান। এটা মামার বাড়ির আবদার ছাড়া কিছু নয়। দেশের জনগণ তা কখনোই হতে দেবে না।

হানিফ বলেন, বাংলাদেশে যা কিছু অর্জন, সবকিছু আওয়ামী লীগ সরকারের। সারা দেশের পাশাপাশি কক্সবাজারেরও ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। জেলা পর্যায়ে উন্নয়নের খতিয়ান দেখতে চাইলে কক্সবাজার শীর্ষে। এখানে মাতারবাড়ী তাপবিদ্যুৎ প্রকল্প, গভীর সমুদ্রবন্দর, আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, রেললাইন সম্প্রসারণ প্রকল্পসহ পর্যটনের নানা মেগা উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন হচ্ছে। এ কারণে কক্সবাজারবাসী শেখ হাসিনার প্রতি আজীবন কৃতজ্ঞ থাকবে।

কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ফরিদুল ইসলাম চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাতীয় সংসদের হুইপ আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন বলেন, আগামী ৭ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কক্সবাজারে আসবেন। এ সময় জনসমাবেশ করবেন। জনসভাকে জনসমুদ্রে পরিণত করতে হবে জানিয়ে আবু সাঈদ বলেন, এ জন্য কক্সবাজারের প্রতিটি পরিবারে আওয়ামী লীগের আমন্ত্রণপত্র পৌঁছাতে হবে। এর দায়িত্ব পালন করবেন ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমানের সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় ধর্মবিষয়ক সম্পাদক সিরাজুল মোস্তফা, উপপ্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, কক্সবাজারের চার সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ, সাইমুম সরওয়ার, জাফর আলম ও কানিজ ফাতেমা আহমেদ, ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা প্রশান্ত ভূষণ বড়ুয়া, মাহফুজুল হায়দার চৌধুরী প্রমুখ।

আলোচনা সভায় জেলার ৯টি উপজেলা ও ৪টি পৌরসভা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনগুলোর অন্তত ১ হাজার নেতা-কর্মী উপস্থিত ছিলেন। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী প্রথম আলোকে বলেন, ৭ ডিসেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কক্সবাজার সফরে এসে সমুদ্রসৈকতের পাশে শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে দলীয় জনসভায় ভাষণ দেবেন। ওই জনসভায় অন্তত পাঁচ লাখ মানুষের সমাগম ঘটানোর প্রস্তুতি চলছে।