পুষ্টি-প্রথম আলো স্কুল বিতর্ক উৎসবে বিষয়ের পক্ষে বক্তব্য উপস্থাপন করছে এক বিতার্কিক। সোমবার সকালে নারায়ণগঞ্জ সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ে
ছবি: দিনার মাহমুদ

‘যোগ দাও যুক্তির মেলায়’ এই স্লোগানে নারায়ণগঞ্জে পুষ্টি-প্রথম আলো স্কুল বিতর্ক উৎসব শুরু হয়েছে। আজ সোমবার সকালে নারায়ণগঞ্জ শহরের মাসদাইর শেরে বাংলা রোডে অবস্থিত নারায়ণগঞ্জ সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের মিলনায়তনে দিনব্যাপী এ উৎসব শুরু হয়। উৎসবের শুরুতে মাদকমুক্ত সমাজ গড়ে তোলার প্রত্যয় ব্যক্ত করা হয়।

আজ সকাল ১০টায় কমর আলী উচ্চবিদ্যালয়, ক্যামব্রিয়ান স্কুল অ্যান্ড কলেজ ও গিয়াসউদ্দিন ইসলামিক মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজের একদল শিক্ষার্থীর জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে বিতর্ক উৎসবের সূচনা হয়। পরে বিতর্ক উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন নারায়ণগঞ্জ সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাসুদা আক্তার।

উদ্বোধনের সময় মাসুদা আক্তার বলেন, ‘বিতর্ক প্রতিযোগিতা না বলে বিতর্ক উৎসব বলায় অনেক খুশি হয়েছি। ভেন্যু হিসেবে আমাদের স্কুলকে নির্বাচন করায় পুষ্টি ও প্রথম আলোকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। বিতর্ক উৎসবে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের একগুচ্ছ তরতাজা ফুল আমার বাগানে ফুটে আছে।’ শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘তর্কের খাতিরে আমরা তর্ক করব। আজকের কিশোর আগামী দিনের ভবিষ্যৎ। সেই অর্থে ভবিষ্যৎ নেতৃত্বের জন্য সুস্থ মন নিয়ে বেড়ে উঠতে হবে। মাদক যেমন মানুষের মনকে ধ্বংস করে দেয়, তেমনই শরীরকেও ধ্বংস করে দেয়। তাই মাদকমুক্ত সমাজ গড়ে তুলতে হবে। মাদকের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে।’

নারায়ণগঞ্জের প্রথম আলো বন্ধুসভার অর্থ সম্পাদক মৌন লাকির সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন পুষ্টি-প্রথম আলো স্কুল বিতর্ক উৎসবের সমন্বয়ক সাইদুজ্জামান রওশন। এ সময় তিনি শিক্ষার্থীদের মাদকের বিরুদ্ধে শপথবাক্য পাঠ করান।

আরও পড়ুন

চট্টগ্রামে পুষ্টি–প্রথম আলো স্কুল আঞ্চলিক বিতর্ক উৎসব

জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে বিতর্ক উৎসবের সূচনা হয়। সোমবার সকালে নারায়ণগঞ্জ সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়ে
ছবি: প্রথম আলো

বিতর্ক উৎসবে নারায়ণগঞ্জ ও মুন্সিগঞ্জের ১৭টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ১৪৩ জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়েছে। প্রতিটি স্কুল থেকে চারজন করে বিতার্কিক ও কুইজে ছয়জন অংশ নেয়। এখান থেকে বিজয়ী দল ঢাকায় জাতীয় পর্বের বিতর্ক প্রতিযোগিতায় অংশ নেবে। বিকেলে বিতর্ক উৎসবের সমাপনী অনুষ্ঠান হবে।

পুষ্টি-প্রথম আলো স্কুল বিতর্ক উৎসব আয়োজনে সহযোগিতা করছে প্রথম আলো বন্ধুসভা। প্রচার সহযোগী হিসেবে আছে নাগরিক টেলিভিশন। বিতর্কে অংশ নেওয়া প্রতিষ্ঠানগুলো হলো ক্যামব্রিয়ান স্কুল অ্যান্ড কলেজ, দেওভোগ হাজী উজির আলী বিদ্যালয়, সোনারগাঁ জি আর ইনস্টিটিউট, বেগম রোকেয়া খন্দকার পৌর উচ্চবিদ্যালয়, নারায়ণগঞ্জ আইডিয়াল স্কুল, সরকারি আই ই টি উচ্চবিদ্যালয়, বেইলি স্কুল, কমর আলী হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ, জালকুড়ি হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজ, নারায়ণগঞ্জ সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়, বিদ্যানিকেতন হাইস্কুল, প্রেসিডেন্ট প্রফেসর ড. ইয়াজ উদ্দিন আহমেদ রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, আদর্শ স্কুল নারায়ণগঞ্জ, আলভার্ট ভিক্টোরিয়া যতীন্দ্র মোহন সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়, গিয়াস উদ্দিন ইসলামিক মডেল স্কুল অ্যান্ড কলেজ, কাশীপুর আদর্শ বালিকা উচ্চবিদ্যালয়, বিবি মরিয়ম বালিকা উচ্চবিদ্যালয় ও কলেজ।

বিতর্কের বিচারক হিসেবে আছেন আর পি সাহা বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী অধ্যাপক মো. আসাদুজ্জামান, আইন ও মানবাধিকার বিভাগের প্রভাষক নিলাদ্রী পাইক, ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের প্রভাষক অদিতি রায়, আইন ও মানবাধিকার বিভাগের প্রভাষক মধুরিমা গুহ নিয়োগি, বাইসেস রিয়াদ সৌদি আরব স্কুলের অধ্যক্ষ করিম রেজা, নারায়ণগঞ্জ সাংস্কৃতিক জোটের সহসভাপতি মোহাম্মদ সেলিম রেজা, নারায়ণগঞ্জ হাইস্কুল অ্যান্ড কলেজের বিতর্ক শিক্ষক গৌতম কুমার সাহা।

আরও পড়ুন

বিতর্ক যাচাইয়ের সুযোগ দেয়