দলীয় সূত্রে জানা গেছে, রোববার বেলা তিনটা থেকে সন্ধ্যা সাতটা পর্যন্ত ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন দলটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ।

এতে উপস্থিত ছিলেন দলের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি সম্পাদক আবদুস সবুর, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, কুমিল্লা-৪ (দেবীদ্বার) আসনের সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল, দেবীদ্বারের উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ম রুহুল আমিন, সাধারণ সম্পাদক রোশন আলী প্রমুখ।

এ সময় কেন্দ্রীয় নেতারা ১৬ জুলাই জাতীয় সংসদ ভবনের এলডি হলে দেবীদ্বার উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সভায় সংসদ সদস্য কর্তৃক উপজেলা চেয়ারম্যানকে কিল-ঘুষি মারার ঘটনায় উভয় পক্ষের বক্তব্য শোনেন।

এরপর জেলা ও উপজেলা নেতারা ঘটনার বিবরণ দেন। পরে ছয় সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। আবদুস সবুর, সুজিত রায় নন্দী, ম রুহুল আমিন, রোশন আলী, দেবীদ্বার উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবদুল মতিন সরকার ও সাধারণ সম্পাদক এ কে এম মনিরুজ্জামানকে তদন্ত কমিটির সদস্য করা হয়েছে।

এদিকে সভায় স্থগিত হওয়া দেবীদ্বার উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন ২ সেপ্টেম্বর হবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সভার একপর্যায়ে উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ ও সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল ওই দিনের ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেন। পরে তাঁরা কোলাকুলি করেন।

সভায় উপস্থিত রোশন আলী বলেন, কেন্দ্রীয় নেতারা সম্মেলনের নতুন তারিখ নির্ধারণ করেছেন। সংসদ সদস্য ও উপজেলা চেয়ারম্যানের দ্বন্দ্ব নিরসন হয়েছে। তদন্ত কমিটিও হয়েছে।

সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য। আবুল কালাম আজাদ কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। বয়সে তরুণ দুই নেতার মধ্যে সাত বছর ধরে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দ্বন্দ্ব রয়েছে।

১৬ জুলাই বেলা তিনটায় জাতীয় সংসদ ভবনে দেবীদ্বার উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় ২১ জুলাইয়ের (পরে স্থগিত) সম্মেলনে কার কী দায়িত্ব, তা নিয়ে সিদ্ধান্ত হয়। একই সঙ্গে উপজেলার এলাহাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে সিরাজুল ইসলাম সরকার ও সাধারণ সম্পাদক হিসেবে আখতারুজ্জামানের নাম অনুমোদন দেওয়া হয়।

এই কমিটিকে ধন্যবাদ জানিয়ে বক্তব্য দিচ্ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ। এ সময় হঠাৎ চেয়ার থেকে উঠে এসে উপজেলা চেয়ারম্যান আজাদকে কিল-ঘুষি মারতে থাকেন সংসদ সদস্য রাজী মোহাম্মদ ফখরুল। সভায় উপস্থিত অন্য সদস্যরা রাজী মোহাম্মদ ফখরুলকে নিবৃত্ত করেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন