পুলিশ জানায়, এ ঘটনায় বাকেরগঞ্জ থানায় মামলা হয়েছে। বাসটির চালককে খোঁজা হচ্ছে। তাঁর সম্পর্কে তথ্য নেওয়ার চেষ্টা চলছে।

বিআরটিএ বরিশাল কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মো. শাহ আলম জানান, দুর্ঘটনাকবলিত বিআরটিসির বাসটি ২০১৫ সালের ২৮ মের পর ফিটনেস নবায়ন করা হয়নি। এ ছাড়া ২০১৯ সালের ১৫ ডিসেম্বরের পর বাসটির নিবন্ধনের মেয়াদ শেষ হয়ে যায়। তিনি বলেন, ‘আমি নিজে দেখেছি, গাড়ির অবস্থা ভালো নেই। গাড়ির রং উঠে গেছে, ভাঙাচোরা। আমরা চালকের কোনো পরিচয় ও কাগজপত্র না পাওয়ায় তাঁর বিষয়ে কিছু বলতে পারছি না।’

বরিশাল বিআরটিসি ডিপো সূত্র জানায়, বরিশাল ডিপোর ওই বাসটি কুমিল্লার গিয়াস উদ্দীন নামে এক ব্যক্তি ইজারা নিয়ে পরিচালনা করতেন। চালকও ইজারাদারের নিযুক্ত ছিলেন। চালকের নাম মো. জাহাঙ্গীর। তিনি পলাতক।

সূত্রটি আরও জানায়, বিআরটিসির বাসগুলোর ইজারা হয় কেন্দ্রীয়ভাবে। প্রতি তিন বছর পরপর ইজারা চুক্তির মেয়াদ বাড়ানো হয়। সে অনুযায়ী, ২০২০ সালে তিন বছরের মেয়াদ শেষ হওয়ার পর ওই বছর আবার বাড়ানো হয়েছিল। তবে এ–সংক্রান্ত কোনো কাগজপত্র বিআরটিসির স্থানীয় কার্যালয়ে সংরক্ষণের জন্য পাঠানো হয় না। ইজারাদার এবং সদর দপ্তরে এগুলো সংরক্ষণ হয়।

জানতে চাইলে বিআরটিসির বরিশাল ডিপোর ব্যবস্থাপক জাহাঙ্গীর আলম আজ দুপুরে প্রথম আলোকে বলেন, ‘বাসটির ইজারা এরই মধ্যে বাতিল করা হয়েছে। চালকের নাম পাওয়া গেছে। তাঁকে গ্রেপ্তারের জন্য পুলিশ চেষ্টা চালাচ্ছে। আমরা সব ধরনের সহায়তা দিচ্ছি। এ ছাড়া নিহত ব্যক্তিদের দাফনের জন্য বিআরটিসির পক্ষ থেকে তাঁদের প্রত্যেকের পরিবারকে ২০ হাজার টাকা করে সহায়তা দেওয়া হয়েছে। বুধবার রাতে এ সহায়তা আমরা পৌঁছে দিয়েছি।’

তিনি আরও বলেন, বাসটি তাঁদের ডিপোর হলেও দীর্ঘমেয়াদি ইজারায় বরিশাল-তালতলী পথে চলছিল। বাসের চালক বিআরটিসির নিয়োগপ্রাপ্ত নন। এ ঘটনায় বিআরটিসির পক্ষ থেকে একটি তদন্ত কমিটি করা হয়েছে। প্রতিবেদন পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাসটির ফিটনেস ও রেজিস্ট্রেশন না থাকার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এ বিষয়ে আসলে বিস্তারিত আমাকে হেড অফিসের সঙ্গে কথা বলে জেনে জানাতে হবে।’

বাকেরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলাউদ্দীন মিলন আজ দুপুরে প্রথম আলোকে বলেন, ওই ঘটনায় নিহত ছয়জনের লাশ বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রয়েছে। এর মধ্যে চারজনের লাশ বাকেরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ছিল। সেই চারটি লাশ আজ সকালে বরিশালের হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় বাকেরগঞ্জ থানা–পুলিশ বাদী হয়ে একটি মামলা করেছে। বাসটির চালককে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন