সিটি করপোরেশনের পাঁচটি ওয়ার্ডে আইডি হ্যাক করে ৫৪৭টি জন্মনিবন্ধন সনদ বের করে নেওয়ার ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের নিয়ে সোমবার বিকেলে সভা করেন মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী। নগরের টাইগারপাসে সিটি করপোরেশনের অস্থায়ী প্রধান কার্যালয়ে এ সভা হয়।

সভা শেষে সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, জন্মনিবন্ধন সহকারীদের আইডি হ্যাকের ঘটনায় ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট সব সংস্থাকে বলা হয়েছে। সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের মামলা করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

নগরের আন্দরকিল্লা, পাহাড়তলী, দক্ষিণ কাট্টলী, দক্ষিণ-মধ্যম হালিশহর ও উত্তর পতেঙ্গা ওয়ার্ডে ১০ থেকে ২২ জানুয়ারির মধ্যে আইডি হ্যাক করে জন্মনিবন্ধন সনদ বের করে নেওয়ার ঘটনা ঘটে। এর মধ্যে উত্তর পতেঙ্গা ও দক্ষিণ কাট্টলীতে জন্মনিবন্ধন সনদ দেওয়া হচ্ছে না।

উত্তর পতেঙ্গার ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবদুল বারেক প্রথম আলোকে বলেন, জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে তাঁর ওয়ার্ডে জন্মনিবন্ধন সনদ দেওয়া কার্যক্রম বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে।

উত্তর পতেঙ্গা ওয়ার্ড কার্যালয় সূত্র জানায়, গত সপ্তাহে আবেদন করা ব্যক্তিদের মধ্যে সোমবার অন্তত ১৫ জনকে জন্মসনদ দেওয়ার কথা ছিল। তাঁদের মধে৵ সাত–আটজন কার্যালয়ে এসে সনদ না নিয়ে ফিরে গেছেন।

ফারজানা ইয়াসমিন নামের এক তরুণী বলেন, তাঁর ছোট ভাইকে ষষ্ঠ শ্রেণিতে ভর্তি করানোর জন্য জন্মনিবন্ধন সনদের প্রয়োজন। ওয়ার্ড কার্যালয়ে এসে জানতে পারেন, আইডি হ্যাকের জটিলতায় সনদ দেওয়া যাচ্ছে না। আবার জন্মনিবন্ধন সনদ ছাড়া ভর্তি করাচ্ছে না বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

একই অবস্থা দক্ষিণ কাট্টলী ওয়ার্ডেও। এই ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মো. ইসমাইল বলেন, তাঁর ওয়ার্ডে তিন দফায় ৪০৯টি জন্মনিবন্ধন সনদ বের করেছে হ্যাকাররা। আইডি পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করেও কাজ হয়নি। তাই আপাতত সনদ দিচ্ছেন না। তাঁরা ভয়ে আছেন, আবার কখন এই ধরনের ঘটনা ঘটে।