প্রশ্ন

ক. মানব বসতি কী?

খ. গ্রামীণ বসতির অধিবাসীরা কী কী পেশার সঙ্গে সম্পৃক্ত?

গ. সজল ও কাজলের বসবাসরত স্থানের ধরন ও কর্মের মধ্যে পার্থক্য বর্ণনা করো।

ঘ. কাজল যে বসতিতে বাস করে, সেখানকার বাহ্যিক বৈশিষ্ট্য ব্যাখ্যা করো।

উত্তর

ক. কোনো একটি নির্দিষ্ট স্থানে মানুষ একত্র হয়ে স্থায়ীভাবে বসবাস করলে তাকে মানব বসতি বলে।

খ. গ্রামীণ বসতির অধিবাসীরা প্রাথমিক উত্পাদন, অর্থাৎ কৃষির ওপর নির্ভরশীল।

এ ছাড়া গ্রামীণ বসতিতে কৃষি ছাড়াও অন্যান্য প্রাথমিক উত্পাদনের ওপর নির্ভরশীল জনগোষ্ঠী দেখা যায়। যেমন মাছ ধরা, মাটির জিনিস তৈরি করা, লোহাজাত সামগ্রী উত্পাদন করা ইত্যাদি। গ্রামের একই পেশার মানুষ একত্রে বসবাস করে একেকটি পাড়া বা গ্রাম গড়ে তোলে। যেমন জীবিকার প্রধান উত্স অনুসারে জেলেপাড়া, মৃৎশিল্পের কুমারপাড়া, লৌহজাত দ্রব্য তৈরির কামারপাড়া ইত্যাদি। অর্থাৎ গ্রামে কৃষক, কামার, কুমার, জেলে ইত্যাদি পেশার লোক দেখা যায়।

গ. কাজল বাস করে শহরে আর সজল বাস করে গ্রামে। উভয়ের বসতির মধ্যে যথেষ্ট পার্থক্য রয়েছে।

সজলের বসতি অঞ্চলের সংখ্যাগরিষ্ঠ অধিবাসী প্রথম পর্যায়ের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড, বিশেষত কৃষির ওপর নির্ভরশীল। কাজলের বসতি অঞ্চলে অধিকাংশ অধিবাসী প্রত্যক্ষ ভূমি ব্যবহার ব্যতীত অন্যান্য অকৃষিকার্য পেশায় নিয়োজিত। গ্রামীণ বসতিতে গ্রামবাসী খোলা জায়গায় বাড়ি নির্মাণ করে। গ্রামের স্থাপনাগুলো সাধারণত মাটি ও কাঠের তৈরি।

নগর বসতিতে লোকজন স্বল্প জায়গায় বাড়ি করে। শহরের স্থাপনাগুলো সাধারণত ইট, সিমেন্টের তৈরি। গ্রামীণ বসতি বিচ্ছিন্ন, বিক্ষিপ্ত ও গোষ্ঠীবদ্ধ, এর যেকোনোটি হতে পারে। জীবিকার প্রধান উত্স অনুসারে এ বসতিগুলোকে জেলেপাড়া, কুমারপাড়া, কামারপাড়া ইত্যাদি নামে চিহ্নিত করা হয়। নগর বসতি প্রশাসনিক নগর, বাণিজ্যিক নগর, শিল্পভিত্তিক নগর ইত্যাদি নানা ধরনের হতে পারে।

ঘ. কাজল বাস করে শহরে, অর্থাৎ সে নগর বসতিতে বাস করে। যে বসতি অঞ্চলে অধিকাংশ অধিবাসী প্রত্যক্ষ ভূমি ব্যবহার ব্যতীত অন্যান্য অকৃষিকার্য, যেমন গ্রামীণ অধিবাসীদের উত্পাদিত দ্রব্যাদির শিল্পজাতকরণ, পরিবহন, ক্রয়-বিক্রয়, প্রশাসন, শিক্ষাসংক্রান্ত কার্য প্রভৃতি পেশায় নিয়োজিত থাকে, তাকে নগর বসতি বলে। বাহ্যিক দিক দিয়ে বিচার করলে দেখা যায়, শহরে অনেক রাস্তাঘাট ও কোনো কোনো ক্ষেত্রে বিশাল বিশাল আকাশচুম্বী অট্টালিকা রয়েছে।

এ ছাড়া বিভিন্ন ধরনের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, হাসপাতাল, নার্সিং হোম, আমোদ-প্রমোদের জন্য বহু ধরনের সংস্থা, পার্ক ইত্যাদি থাকে। বড় বড় শহরের বিভিন্ন অংশে নানা ধরনের কর্মকাণ্ড চলে। যেমন উদ্দীপকের কাজল শহরে একটি আধুনিক বাড়ি নির্মাণ করেছে।

মো. শাকিরুল ইসলাম, প্রভাষক, ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ, ঢাকা

এই অধ্যায়ের প্রকাশিত পূর্বের সৃজনশীল প্রশ্ন | পরবর্তী সৃজনশীল প্রশ্ন

পড়াশোনা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন