প্রদর্শনীর জন্য নির্বাচিত হতে হয়। সেখানে ছবিটি নির্বাচিত হয়েছে।  
আবু শাহেদ বলেন, ‘গত বছর এই উৎসবে “পায়ের তলায় মাটি নাই” ছবিটি মূল প্রতিযোগিতা বিভাগে নির্বাচিত হয়েছিল। এ নিয়ে দুই বছর ধরে গোয়া আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে বাংলাদেশের বেশ কয়েকটি সিনেমা সম্মানের সঙ্গে প্রতিনিধিত্ব করছে। বিষয়টি আন্তর্জাতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের সিনেমার জন্য বড় অর্জন মনে করছি।’
মা ও মেয়ের মনস্তাত্ত্বিক টানাপোড়েন নিয়ে ‘পাতাল ঘর’ ছবির গল্প। ছবিতে মেয়ের চরিত্রটি করেছেন নুসরাত ফারিয়া।

এ ধরনের উৎসবে নুসরাত ফারিয়া অভিনীত প্রথম কোনো সিনেমা বিশ্ব প্রিমিয়ার যাচ্ছে। প্রযোজক, পরিচালকের সঙ্গে এই উৎসবে ফারিয়া নিজেও উপস্থিত হবেন।
আনন্দিত ফারিয়া বলেন, ‘আমার সাত বছরের সিনেমাজীবনে প্রথম কোনো সিনেমা এ ধরনের বড় কোনো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হবে। আর উৎসবটিও খুব সম্মানজনক। সেখানে আমার প্রথম কোনো ছবি প্রতিযোগিতা করবে। এটি আমার জন্য আনন্দের, আমার জন্য বড় অর্জনের। আমি খুশি।’

নুর ইমরান পরিচালিত ছবিতে নুসরাত ফারিয়া ছাড়া আরও অভিনয় করেছেন মামুনুর রশীদ, সালাউদ্দিন লাভলু, গিয়াস উদ্দিন সেলিম, ফজলুর রহমান বাবু, আফসানা মিমি, নাজিয়া হক অর্ষা, মামুন-উল-হক, দীপান্বিতা মার্টিন, রওনক হাসান, নাসির উদ্দিন খান, মৌটুসি বিশ্বাস, আরফান মৃধা, শাদাত রাসেল, হাসনাত রিপন, চন্দনা বিশ্বাস প্রমুখ।

বক্স অফিস নিবেদিত ও গল্প রাজ্য ফিল্মসের প্রযোজনায় নির্মিত হয়েছে ছবিটি। এতে সহযোগিতায় আছে ইমপ্রেস টেলিফিল্ম লিমিটেড ও বাতায়ন প্রোডাকশন। নির্বাহী প্রযোজক হিসেবে কাজ করেছেন মীর মোকাররম হোসেন, সহপ্রযোজক হিসেবে আছেন ইমপ্রেস টেলিফিল্মের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর ও বাতায়ন প্রোডাকশনের তাহরিমা খান।

এই উৎসবে একই বিভাগে খন্দকার সুমনের ছবি ‘সাঁতাও’ প্রদর্শিত হবে। এ ছাড়া আন্তর্জাতিক প্রিমিয়ার হবে বাংলাদেশে মুক্তি পাওয়া  গিয়াস উদ্দিন সেলিমের ‘পাপ পুণ্য’ ছবিটিও।