বোর্ডার-গাভাস্কার টেস্ট সিরিজের দামামা বাজছে। চার টেস্টের সিরিজ খেলতে ভারতে আসবে অস্ট্রেলিয়া দল। নাগপুরে ৯ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হবে সিরিজের প্রথম টেস্ট। অ্যামাজন প্রাইম ভিডিও এই সিরিজ নিয়ে টিজার বানিয়ে ইউটিউবে ছেড়েছে। সেখানে কামিন্স এ প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন। প্রশ্নটা করেছিলেন তাঁর জাতীয় দল সতীর্থ উসমান খাজা। কোহলি ও টেন্ডুলকারের মধ্যে কামিন্সের কাছে কে সেরা?

অস্ট্রেলিয়ার টেস্ট অধিনায়ক জানেন, এই প্রশ্নের উত্তর দেওয়া কত কঠিন! দুটো আলাদা সময়ের মধ্যে থেকে কাউকে সেরা হিসেবে বেছে নেওয়া প্রায় অসম্ভবও। কামিন্স তাই উত্তরে মজা করে প্রশ্ন এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলেন, ‘কী বিষয়? কুকিং (রান্না)?’ তবু রক্ষে নেই বুঝতে পেরে কামিন্স এরপর নিজের মনের কথাটা বলেছেন, ‘টেন্ডুলকারের বিপক্ষে আমি একবারই খেলেছি। অনেক বছর আগে টি-টোয়েন্টিতে। তাই আমি বিরাটকেই বেছে নেব।’

ভারতের হয়ে একটি মাত্র টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে সর্বাধিক রান ও সেঞ্চুরির রেকর্ডধারী টেন্ডুলকার, সেটি ২০০৬ সালে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে। সম্ভবত ফ্র্যাঞ্চাইজি টি-টোয়েন্টি লিগে টেন্ডুলকারের মুখোমুখি হয়েছেন কামিন্স।

শুধু কামিন্সকেই প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়নি। খাজাকেও পাল্টা প্রশ্ন করেছেন অস্ট্রেলিয়ার এই টেস্ট অধিনায়ক। টেন্ডুলকার, সৌরভ গাঙ্গুলী, রাহুল দ্রাবিড় ও ভিভিএস লক্ষ্মণদের একসঙ্গে ‘ফ্যাব ফোর’ বলা হতো। বীরেন্দর শেবাগ আসার পর সেটি হয়ে যায়ে ‘ফ্যাব ফাইভ’। কামিন্স শেবাগ পর্যন্ত যাননি। খাজার কাছে তিনি জানতে চেয়েছিলেন, সেরা বিবেচনায় ভারতের ‘ফ্যাব ফোর’কে ক্রম অনুযায়ী সাজালে সবার আগে থাকবেন কে?

খাজার উত্তর, ‘আমি টেন্ডুলকারকে সবার আগে রাখব। দ্রাবিড় দুইয়ে, তিনে দাদা অর্থাৎ গাঙ্গুলী। লক্ষ্মণের জন্য এটা বলতে খুব খারাপ লাগছে। লক্ষ্মণের ব্যাটিং দেখতে ভালোবাসি, কিন্তু বাঁহাতিই (সৌরভ গাঙ্গুলী) আগে আসবে।’