নিউজিল্যান্ড

৪ ম্যাচে ৫ পয়েন্ট

সামগ্রিক রানরেটে সবচেয়ে ভালো অবস্থানে আছে। জিতলে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেমিফাইনালে নাম লেখানোর সম্ভাবনা বেশি। হারলেও গ্রুপ রানার্সআপ হয়ে ওঠার সুযোগ থাকছে। সে ক্ষেত্রে অস্ট্রেলিয়া কিংবা ইংল্যান্ডের হার কামনা করতে হবে

ইংল্যান্ড

৪ ম্যাচে ৫ পয়েন্ট

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে যেকোনো ব্যবধানে জিতলেই চলবে। তবে অস্ট্রেলিয়া ও আয়ারল্যান্ড হারলে নিজেরা অল্প ব্যবধানে হারলেও সামগ্রিক রানরেটে এগিয়ে থেকে সেমিফাইনালে উঠবে।

অস্ট্রেলিয়া

৪ ম্যাচে ৫ পয়েন্ট

শেষ ম্যাচে আফগানিস্তানকে বিশাল ব্যবধানে হারাতে হবে। এরপর তাকিয়ে থাকতে হবে ইংল্যান্ড-শ্রীলঙ্কা ম্যাচের দিকে। শ্রীলঙ্কা জিতলে কোনো হিসাব ছাড়াই সেমিফাইনালে উঠবে। তবে ইংল্যান্ড জিতলে পয়েন্ট হবে সমান। সে ক্ষেত্রে সুপার টুয়েলভের রানরেটে সেমিফাইনালিস্ট নির্ধারণ করা হবে।

শ্রীলঙ্কা

৪ ম্যাচে ৪ পয়েন্ট

নাটাই নিজেদের হাতে নেই। শেষ ম্যাচে ইংল্যান্ডকে বড় ব্যবধানে হারাতে হবে। তার আগে অস্ট্রেলিয়া আফগানিস্তানকে হারিয়ে দিলে কোনো সমীকরণ ছাড়াই বিদায় নিতে হবে।

আয়ারল্যান্ড

৪ ম্যাচে ৩ পয়েন্ট

কাগজে-কলমে কোনো রকম টিকে আছে। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে নিজেদের শেষ ম্যাচে শুধু বিশাল ব্যবধানে জিতলেই চলবে না, ইংল্যান্ড ও অস্ট্রেলিয়ার বড় হার কামনা করতে হবে।

আফগানিস্তান

৪ ম্যাচে ২ পয়েন্ট

আজ শ্রীলঙ্কার কাছে হেরে বিদায় নিশ্চিত হয়েছে। স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে শেষ ম্যাচটা তাদের জন্য শুধু নিয়মরক্ষার। আফগানরা অবশ্য দুর্ভাগা ভাবতে পারেন নিজেদের। বৃষ্টিতে তাঁদের দুটি ম্যাচ পরিত্যক্ত হয়েছে।