এই দলের ওপেনার অস্ট্রেলিয়ার উইকেটকিপার ব্যাটার অ্যালিসা হিলি ও ভারতের স্মৃতি মান্ধানা।

হিলি ২০২২ ওয়ানডে বিশ্বকাপে সেমিফাইনালে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১২৯ এবং ফাইনালে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ১৭০ রানের ইনিংস খেলেন। সব মিলিয়ে নারী বিশ্বকাপ ইতিহাসে সর্বোচ্চ ৫০৯ রান আসে তাঁর ব্যাট থেকে। ভারতের বাঁহাতি ব্যাটার বছরজুড়ে একটি শতক ও ছয়টি অর্ধশতক ছোঁয়া ইনিংস খেলেন।

দক্ষিণ আফ্রিকার লরা উলভার্ডের বছরের সেরা ইনিংস ছিল বিশ্বকাপে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ১১৭। ব্যাটিং অর্ডারের চারের জন্য নির্বাচিত ন্যাট স্কিভার বিশ্বকাপ ফাইনালে খেলেন ১৪৮ রানের ইনিংস। পুরো বছরে ৮৩৩ রানের পাশাপাশি মিডিয়াম পেসে ১২ উইকেটও নেন ইংলিশ এই অলরাউন্ডার।

আরেক ব্যাটিং অলরাউন্ডার অ্যামেলিয়া কেরও জায়গা পেয়েছেন একাদশে। নিউজিল্যান্ডের এই ২২ বছর বয়সী ক্রিকেটার ব্যাট হাতে ৬৭৬ রানের পাশাপাশি ১৭ উইকেট নেন।

অস্ট্রেলিয়ার মিডল অর্ডার ব্যাটার বেথ মুনি ১০ ইনিংসে করেন ৪০৩ রান, যার মধ্যে আউট হয়েছে মাত্র ৪টিতে।

বোলার হিসেবে জায়গা পেয়েছেন মেয়েদের ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ের এক নম্বরে থাকা ইংল্যান্ডের সোফি এক্লেস্টোন, দক্ষিণ আফ্রিকার পেসার আয়াবোঙ্গা খাকা ও শবনিম ইসমাইল এবং ভারতের পেসার রেনুকা সিং।

বর্ষসেরা নারী ওয়ানডে দল:

অ্যালিসা হিলি, স্মৃতি মান্ধানা, লসা উল্ভার্ডট, ন্যাট স্কিভার, বেথ মুনি, হারমানপ্রিত কাউর, অ্যামেলিয়া কের, সোফি এক্লেস্টোন, আয়াবোঙ্গা খাকা, রেনুকা সিং ও শবনিম ইসমাইল।