আলট্রা এজে দেখা যায়, বল ব্যাটে লেগেছিল রুশোর। তবে রিপ্লেতে দেখা যায়, বাটলারের দুই হাতের গ্লাভসে আটকে যাওয়ার আগে মাটিতে পড়েছিল বল। টিভি আম্পায়ার রুশোকে নটআউট দেন। বল ব্যাটে লাগলেও রিভিউ হারায় ইংল্যান্ড। প্রায় ছয় বছর পর এ সিরিজ দিয়েই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরা রুশো শেষ পর্যন্ত খেলেন ৫৫ বলে ৯৬ রানের অপরাজিত ইনিংস। দক্ষিণ আফ্রিকার ৫৮ রানের জয়ে ম্যাচসেরাও হন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান।

default-image

রুশোর নটআউটের সিদ্ধান্ত বিতর্কিত, স্টোকস অবশ্য এমন কিছু বলেননি। এ সিরিজে বিশ্রামে থাকা অলরাউন্ডার বরং তুলে ধরেছেন আরেকটি দিক।

স্টোকস ওই আউটের একটি ভিডিও ক্লিপ শেয়ার করে টুইটারে লেখেন, ‘আচ্ছা, তৃতীয় আম্পায়ার সফট সিগন্যাল ছাড়াই সিদ্ধান্ত নিলেন…তাহলে দয়া করে এই সফট সিগন্যাল থেকে কি আমরা মুক্তি পেতে পারি!’

সাধারণত ফিল্ডার বা উইকেটকিপারের কোনো ক্যাচ খোলা চোখে পরিষ্কার বুঝতে না পারলে অন ফিল্ডের আম্পায়াররা টেলিভিশন আম্পায়ারের দ্বারস্থ হন। তবে মাঠ থেকে দেওয়া হয় একটি সফট সিগন্যাল—সেটি নাকচ করতে সুস্পষ্ট তথ্য থাকতে হয় টিভি আম্পায়ারের কাছে।

অবশ্য সফট সিগন্যাল নিয়ে বিতর্কের ঘটনাও নতুন নয়। আবার এলবিডব্লু বা কট বিহাইন্ডের ক্ষেত্রে যেমন হক আই ও আলট্রা এজ বা স্নিকোর মতো প্রযুক্তি আছে, এমন ক্যাচের ক্ষেত্রে টেলিভিশন আম্পায়ারকে নির্ভর করতে হয় শুধু রিপ্লের ওপরই।

তবে গতকাল বাটলারের ওই ক্যাচের ক্ষেত্রে মাঠের আম্পায়ার শুরুতেই আবেদন নাকচ করে দেন, বল ব্যাটে লাগেনি এমনটা ধরে নিয়েই অমন সিদ্ধান্ত বলেই ধরে নেওয়া যায়। ফলে রিভিউ নিতে হয় বাটলারকে।

ম্যাচ শেষে বাটলার ওই সিদ্ধান্ত নিয়ে বলেছেন, ‘আমার মনে হয়েছিল ক্যাচটি নিয়েছি। তবে সিদ্ধান্ত যাদের ওপর, তারা সেটি মনে করেনি। হার সব সময়ই হতাশার, ধারাবাহিক হতে কঠোর পরিশ্রমই করছি আমরা। তবে নিজেদের সেরাটা দিতে পারিনি।’

কার্ডিফের জয়ের ৩ ম্যাচ সিরিজে ১-১ সমতা এনেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। সিরিজের শেষ ম্যাচ ৩১ জুলাই, সাউদাম্পটনে।

খেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন