বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

অতিমাত্রায় সংক্রামক অমিক্রন ধরনের কারণে করোনার ঊর্ধ্বমুখী সংক্রমণের কথা তুলে ধরে বিচারক বলেন, করোনাভাইরাস মহামারির বর্তমান পরিপ্রেক্ষিতে ওই বাবা যদি টিকা না নেন এবং স্বাস্থ্যবিধি মানতে অস্বীকৃতি জানান, তাহলে তাঁর সংস্পর্শে এসে ওই শিশুর কোনো উপকার হবে না।

ছুটির দিনে ছেলেকে দেখার সময় বাড়িয়ে দেওয়ার অনুরোধ জানিয়ে বাবার করা আবেদনের পর বিষয়টি প্রকাশ্যে এলে আদালত এ রায় দেন।

শিশুটির মা অবশ্য ছেলেকে দেখতে চেয়ে বাবার করা অনুরোধের বিরোধিতা করেন। তিনি আদালতকে বলেন, সম্প্রতি তিনি জানতে পারেন, ছেলের বাবা টিকা নেননি। এ ছাড়া সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তাঁর আগের করা পোস্ট দেখে জানতে পারেন, একই সঙ্গে ওই ব্যক্তি করোনাসংক্রান্ত স্বাস্থ্যবিধি মানার বিরোধী।

বিচারক উল্লেখ করেন, এই মুহূর্তে কুইবেকে দ্রুত বিস্তার বাড়ছে অমিক্রনের। শিশুটি টিকা নিয়েছে। বাবার সংস্পর্শে তার অমিক্রন আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি বাড়বে।

শিশুটির মায়ের আরও দুই সন্তান রয়েছে। একটির বয়স সাত মাস, অপর শিশুর বয়স চার বছর। ওই দুই সন্তানসহ এক সঙ্গীকে নিয়ে থাকেন তিনি। কানাডায় পাঁচ বছর বা এর বেশি বয়সী শিশুদের জন্য করোনার টিকার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এই বয়সসীমার মধ্যে না পড়ায় ওই দুই শিশুকে এখনই টিকা দেওয়া যাচ্ছে না।

বিচারক রায় দিয়েছেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে ১২ বছর বয়সী সন্তানের সঙ্গে তাদের বাবার দেখা করাটা ওই তিন সন্তানের কারোরই কোনো উপকারে আসবে না।

বিশ্ব থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন