গত শুক্রবার আসামের রাজধানী গুয়াহাটিতে শাহরুখ খানের আসন্ন মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি ‘পাঠান’কে কেন্দ্র করে গোলোযোগ হয়। হিন্দু জাতীয়তাবাদী সংগঠন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের একটি শাখা বজরং দলের সদস্যরা একটি স্থানীয় সিনেমা হলে ভাঙচুর চালান এবং ছবিটির পোস্টার ছিঁড়ে দেন।

এ বিষয়ে তাঁকে প্রশ্ন করা হলে, বিশ্বশর্মা গত শনিবার সাংবাদিকদের বলেছিলেন, ‘শাহরুখ খান কে? আমাদের এখানে কত শাহরুখ খান রয়েছেন। “ডক্টর বেজবরুয়া” বলে একটি ছবি শিগগিরই মুক্তি পাবে। আমি সেই ছবিটি নিয়ে চিন্তিত। “পাঠান” সম্পর্কে জানি না, দেখতেও যাব না। এ নিয়ে আমার কোনো টেনশন নেই।’  তাঁর এ মন্তব্যের কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই বিশ্বশর্মাকে ফোন করেন শাহরুখ এবং ছবিটিকে নিরাপত্তা দেওয়ার বিষয়টি সুনিশ্চিত করেন মুখ্যমন্ত্রী।

এর আগে গুয়াহাটির ওই সিনেমা হলের মালিক রাজীব বোরা বলেন, শাহরুখ খান তাঁকেও ফোন করেছিলেন এবং প্রেক্ষাগৃহে কী ধরনের হামলা হয়েছে, তা বিস্তারিতভাবে জানতে চেয়েছিলেন। শাহরুখ খান অত্যন্ত উদ্বিগ্ন ছিলেন বলেও জানান বোরা।

‘পাঠান’ মুক্তি পেতে চলেছে আগামী সপ্তাহে, ২৫ জানুয়ারি। ২৬ জানুয়ারি ভারতের প্রজাতন্ত্র দিবস। সেই সময় অফিস, স্কুল ইত্যাদি ছুটি থাকবে। দর্শকেরা এ সময় ছুটিও নেন। তাই এ সপ্তাহে ছবিটি ভালো ব্যবসা করবে, এ আশাতেই বুধবার ছবিটি মুক্তির ব্যবস্থা করেছেন প্রযোজকেরা। সাধারণত ভারতে বাণিজ্যিক ছবি মুক্তি পায় শুক্রবারে।

কিন্তু ছবিটি নিয়ে লাগাতার বিক্ষোভ ভারতে চলছে। হিন্দুত্ববাদীদের বক্তব্য, এই ছবিতে নির্দিষ্ট গান, সংলাপ এবং পোশাকের মধ্য দিয়ে হিন্দুধর্মকে অপমান করা হয়েছে। শাহরুখ খান এবং অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোনের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ চলছে। তাঁদের নিয়মিত উত্তেজক মন্তব্য করছেন বিজেপি ও হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের নেতা–কর্মীরা।

বিষয়টি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে গত মঙ্গলবার বিজেপির জাতীয় কর্মসমিতির বৈঠকে হিন্দুত্ববাদী সংগঠন এবং বিজেপির নেতা–কর্মীদের উত্তেজক মন্তব্যের বিরুদ্ধে বক্তব্য দেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি বলেন, ‘দলের নেতা–কর্মীরা এমন ধরনের কথাবার্তা বলছেন, যা বাঞ্ছনীয় নয়। দল যে ভালো কাজকর্ম করছে, সেগুলোর ওপর থেকে মানুষের নজর যাতে ঘুরে না যায়, সেদিকে দৃষ্টি রাখতে হবে।’

তাঁর এ মন্তব্যের মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রী পরিষ্কার করে দেন যে সরকার এ ধরনের কাজকর্ম বরদাশত করবে না। আসামের মুখ্যমন্ত্রীও আজ জানালেন, রাজ্য সরকার বহু কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ছবিটিকে নিরাপত্তা দেবে।