হামলায় পল আহত হয়েছেন। তিনি মাথা ও হাতে আঘাত পেয়েছেন। হাসপাতালে নেওয়ার পর তাঁর অস্ত্রোপচার হয়েছে। তাঁর পূর্ণ সুস্থতা আশা করছেন চিকিৎসকেরা।

গ্রেপ্তার ডেপাপেকেও হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। পলের ওপর হামলার কারণ কী, তা বলতে পুলিশ প্রাথমিকভাবে অস্বীকৃতি জানায়।

হামলাকারী বাড়িতে ঢুকে ন্যান্সি পেলোসিকেও খুঁজছিলেন। হামলার সময় তিনি ওয়াশিংটনে ছিলেন। পরে তিনি সান ফ্রান্সিসকোতে ফিরে আসেন।

আগামী ৮ নভেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচন। নির্বাচনের দুই সপ্তাহের কম সময় আগে এই হামলার ঘটনা দেশটিতে রাজনৈতিক সহিংসতার ভয় জাগিয়েছে। এই নির্বাচনের মাধ্যমে প্রতিনিধি পরিষদ ও সিনেটের নিয়ন্ত্রণ নির্ধারিত হবে।

শেরিফ কার্যালয়ের অনলাইন রেকর্ড অনুয়ায়ী, গ্রেপ্তার ডেপাপেকে কারাগারে রাখা হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টা, মারাত্মক অস্ত্র দিয়ে হামলা, বয়স্ক ব্যক্তির সঙ্গে দুর্ব্যবহার, হুমকিসহ অন্যান্য গুরুতর অপরাধের অভিযোগ আনা হয়েছে।

সান ফ্রান্সিসকোর জেলা অ্যাটর্নি অফিস এই ঘটনায় আনুষ্ঠানিক অভিযোগ করবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।