গত বুধবার ঠাকুরগাঁও রানীশংকৈল উপজেলার তিনটি ইউপির ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলার বাচোর ইউপির ভাংবাড়ি ভিএফ নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট গ্রহণ ও গণনা শেষে ফলাফল ঘোষণা করা হয়। ঘোষিত ফলে ইউপি সদস্য পদে বাবুল হোসেন ৪৯৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। অপর ৩ প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর মধ্যে আজাদ আলী ৪৪২ ভোট, খালেদুর রহমান ২৪৫ ভোট ও কামালউদ্দিন ২১৩ ভোট করে পেয়েছেন। কিন্তু ওই ফলাফল প্রত্যাখ্যান করেন পরাজিত প্রার্থীর সমর্থকেরা। পরে তাঁরা লাঠিসোঁটা নিয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ওপর হামলা চালায়।

এ সময় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা তাদের কাঁদানে গ্যাসের শেল ছোড়ে ছত্রভঙ্গ করার চেষ্টা করে। এতে কাজ না হওয়ায় হামলাকারীদের লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে পুলিশ। সে সময় মা মিনারা বেগমের কোলে থাকা সুরাইয়া মাথায় আঘাত পেয়ে নিহত হয়। তবে গুলি না অন্য কিছুতে সুরাইয়া আঘাত পেয়েছে, তা নিশ্চিত করতে পারেনি পুলিশ।

এ ঘটনায় এলাকাবাসী তাৎক্ষণিকভাবে সুরাইয়ার লাশ নিয়ে বিক্ষোভ করে স্থানীয় লোকজন। ওই সময় তাঁরা রানীশংকৈল আঞ্চলিক মহাসড়ক অবরোধ করে। পরে পুলিশ এসে তাঁদের নিয়ন্ত্রণ করে। লাশ উদ্ধারের পর গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য সুরাইয়ার লাশ দিনাজপুর এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয় পুলিশ। দুপুরে ময়নাতদন্ত শেষে লাশ পরিবারের সদস্যদের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

default-image

ময়নাতদন্ত শেষে মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান হাবিবুর রহমান জানান, শিশুটির মাথায় আঘাত ছিল। এটি লোহার রডের আঘাতেও হতে পারে, বুলেটের আঘাতও হতে পারে। খুলির একটি অংশ পাওয়া যায়নি।

এ ঘটনায় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট রামকৃষ্ণ বর্মণকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যর তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটিকে সাত কর্মদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

এদিকে গতকাল রাত ৮টার দিকে জেলা বিএনপির এক প্রতিনিধিদল সুরাইয়াদের বাড়িতে গিয়ে তার স্বজনদের সঙ্গে দেখা করেন। বিএনপির প্রতিনিধিদলে ছিলেন ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপির সভাপতি তৈমুর রহমান, সহসভাপতি মামুন আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. তাজউদ্দীন, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব হোসেন প্রমুখ।

এলাকায় আতঙ্ক

ভোটের দিন পুলিশের ওপর হামলা ও শিশু সুরাইয়া নিহত হওয়ার ঘটনার পর থেকে ভাংবাড়ি এলাকায় আতঙ্ক বিরাজ করছে। হয়রানি থেকে বাঁচতে অনেকেই এলাকা ছেড়ে অন্য এলাকায় চলে গেছেন।

ভাংবাড়ি ভিএফ নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মকবুল হোসেন বলেন, যাঁরা পুলিশের ওপর হামলা করেছেন, তাঁরা সবাই বহিরাগত। এখন এলাকার লোকজন আতঙ্কের মধ্যে রয়েছে।
ফুটকিবাড়ী এলাকার বাসিন্দা আজাহার আলি বলেন, ‘শুনছি এ ঘটনায় মামলা হবে। তবে মামলায় যেন নিরপরাধ কোনো ব্যক্তিকে জড়ানো না হয়। আমরা চাই প্রকৃত ব্যক্তিরা শাস্তি পাক।’

মামলা প্রসঙ্গে ওই ভোটকেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা খতিবর রহমান বলেন, ভোটকেন্দ্রে হামলার ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। মামলার খসড়া করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন