ম্যান ইউনাইটেড ভক্তদের অবশ্য তাঁর প্রতি ভালোবাসা কতটুকু আছে, তা প্রশ্নসাপেক্ষ। ইউনাইটেডে দ্বিতীয় দফায়ও যে রেড ডেভিলসের ভক্তদের হতাশা উপহার দিয়ে গেলেন পগবা।

default-image

১১ বছরের পেশাদার ক্যারিয়ারে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড আর জুভেন্টাসের মধ্যেই আসা-যাওয়া করলেন ২৯ বছর বয়সী ফরাসি মিডফিল্ডার। ইউনাইটেডের একাডেমিতে বেড়ে ওঠা, ২০১১ সালে অভিষেক। কিন্তু স্যার অ্যালেক্স ফার্গুসনের সঙ্গে পগবার সে সময়ের এজেন্ট মিনো রাইওলার বনিবনা না হওয়া আর ইউনাইটেডে তখনই পগবার পর্যাপ্ত খেলার সুযোগের নিশ্চয়তা না থাকায় সেখানে চুক্তি আর নবায়ন হয়নি।

ইউনাইটেডে চুক্তি শেষে ২০১২ সালে বিনামূল্যে জুভেন্টাসে যান পগবা। গিয়েই দারুণ সফল! চার বছরে চারবার লিগসহ ইতালির ঘরোয়া ফুটবলে ৭টি শিরোপা জিতেছেন, পিরলো-ভিদালের সঙ্গে মাঝমাঠে তাঁর সমন্বয়ে দারুণ ভিত্তি পাওয়া জুভেন্টাস ওঠে ২০১৫ চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালেও।

২০১৬ সালে জোসে মরিনিও ম্যান ইউনাইটেড আবার তাঁর প্রতি আগ্রহী হয়ে উঠে। ১০ কোটি ৫০ লাখ ইউরোতে তাঁকে দলে টানে। প্রথম বছরে অবশ্য মরিনিওর অধীনে দারুণ সাফল্যই এনে দিয়েছেন পগবা। লিগ কাপের পাশাপাশি জেতেন ইউরোপা লিগ। কিন্তু ওই পর্যন্তই, পরের মৌসুমেই কখনো মরিনিওর সঙ্গে ঝামেলায়, তো চোটে নিয়মিত ভালো খেলতে পারেননি।

সে থেকে এ পর্যন্ত পগবার ইউনাইটেডের জার্সিতে আলো ছড়ানোর তুলনায় তাঁর মাঠে নিষ্প্রভ হয়ে থাকার হার কল্পনাতীত। মাঝে ২০১৮ সালে ফ্রান্সের জার্সিতে বিশ্বকাপ জিতেছেন, গত বছর জিতেছেন নেশনস কাপ, কিন্তু ইউনাইটেডের জার্সিতে একের পর এক কোচ বদলে গেলেও পগবার জ্বলে ওঠা হয়নি।

ফল? ছয় বছর ইউনাইটেডে দীর্ঘশ্বাসের প্রতিশব্দ হয়ে থাকার পর, বেতনে-দলবদলের অঙ্কে ইউনাইটেডকে অনেক খরচ করানোর পর আবার বিনামূল্যে সেই জুভেন্টাসেই গেলেন পগবা।

দলবদলবিষয়ক নির্ভরযোগ্য ইতালিয়ান সাংবাদিক ফাব্রিজিও রোমানো জানাচ্ছে, জুভেন্টাসে ২০২৬ সাল পর্যন্ত চুক্তিতে বছরে ৮০ লাখ ইউরো করে নিশ্চিত বেতন পাবেন। আর জুভেন্টাস নিশ্চিত করেছে ক্লাবে পগবার নতুন জার্সি নম্বর – ১০!

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন