বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভ ও প্রথম পর্বে অংশ নেওয়া দলগুলো সব মিলিয়ে পাবে ৫৬ লাখ ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় ৪৭ কোটি ৮৯ লাখ টাকার এই অঙ্ক ভাগ করে দেওয়া হবে বিভিন্ন পর্যায়ে। প্রতিটি ম্যাচের জন্য নির্দিষ্ট একটি অঙ্ক দেওয়া হবে এবং প্রতিটি জয়ের জন্য বোনাস পাবে বিজয়ী দল। সুপার টুয়েলভ পর্বে প্রতিটি জয়ের জন্য ৪০ হাজার ডলার করে পাবে দলগুলো। অর্থাৎ ৩০ ম্যাচের জন্য এ খাতে ১২ লাখ ডলার দেওয়া হবে।

আর সুপার টুয়েলভ থেকে বাদ পড়া আট দলও কিছু অর্থ পাবে। সেমিফাইনাল না উঠতে পারা এ আট দল ৭০ হাজার ডলার করে পাবে। অর্থাৎ, সুপার টুয়েলভ পর্ব শেষে ৫ লাখ ৬০ হাজার ডলার ব্যয় হচ্ছে এ ক্ষেত্রে।

ওদিকে প্রথম পর্বে অংশ নেওয়া আট দলকেও ভুলছে না আইসিসি। এ পর্যায়ের ১২ ম্যাচেও জয়ী দল ম্যাচপ্রতি ৪০ হাজার ডলার করে পাবে। আর যারা সুপার টুয়েলভে উঠতে ব্যর্থ হবে, সেই চার দল পাবে ৪০ হাজার ডলার করে।

অর্থাৎ বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, আয়ারল্যান্ড, নামিবিয়া, নেদারল্যান্ডস, ওমান, পাপুয়া নিউগিনি ও স্কটল্যান্ডের মধ্যে যদি কোনো দল কোনো ম্যাচ না জিতেই বিশ্বকাপ শেষ করে, তবু অন্তত ৪০ হাজার ডলার বা ৩৪ লাখ ২০ হাজার টাকা নিয়ে দেশে ফিরবে। আর যদি কোনো দল, ধরা যাক বাংলাদেশ বা শ্রীলঙ্কা সবগুলো ম্যাচ জিতে সুপার টুয়েলভে ওঠে এবং শেষ পর্যন্ত বিশ্বকাপ জিতে যায়, তবে ১৯ লাখ ২০ হাজার ডলার বা ১৬ কোটি ৪২ লাখ টাকা পাবে।

আইসিসি আজ বিশ্বকাপ উপলক্ষে দুটি পরিবর্তনের কথা জানিয়েছে। প্রতি ইনিংসের মাঝপথে আড়াই মিনিটের একটি পানি পানের বিরতি রাখার ব্যবস্থা রেখেছে। আর টি-টোয়েন্টি ম্যাচে সাধারণত ফল নির্ধারণের জন্য প্রতি দলের ইনিংসের অন্তত ৫ ওভার শেষ হতে হয়। তবে এবার সেমিফাইনাল ও ফাইনালের জন্য নিয়মে একটু বদল আনা হচ্ছে। এবার মহাগুরুত্বপূর্ণ এ তিন ম্যাচে ইনিংসের অন্তত ১০ ওভার শেষ না হলে ম্যাচ রিজার্ভ ডে–তে নেওয়া হবে।

আইসিসি টি টুয়েন্টি বিশ্বকাপ এর সর্বশেষ খবর পড়ুনঃ

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন