খালেদা জিয়া

খালেদা জিয়া বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ রাজনৈতিক দল বিএনপির চেয়ারপারসন। পারিবারিক নাম খালেদা খানম, ডাক নাম পুতুল। তাঁর জন্ম ১৯৪৬ সালের আগস্ট ১৫ অবিভক্ত ভারতের জলপাইগুড়িতে। তাঁর আদিবাড়ি ফেনীর ফুলগাজী উপজেলায়। বাবার নাম ইস্কান্দর মজুমদার এবং মা বেগম তৈয়বা মজুমদার। তিন বোন ও দুই ভাইয়ের মধ্যে খালেদা জিয়া তৃতীয়।

খালেদা জিয়া বাংলাদেশের প্রথম নারী প্রধানমন্ত্রী। ১৯৯১ সালের সাধারণ নির্বাচনে জয়ী হয়ে তাঁর দল ক্ষমতায় আসে। ওই বছরই সংসদীয় সরকার পদ্ধতি প্রবর্তন হলে তিনি ৫ম সংসদে প্রধানমন্ত্রী হন। এরপর ১৯৯৬ সালে ১৫ ফেব্রুয়ারির নির্বাচনের পর এক মাসের জন্য ৬ষ্ঠ সংসদের প্রধানমন্ত্রী ছিলেন। ওই বছরে সপ্তম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হেরে যায় খালেদা জিয়ার দল বিএনপি। তিনি হল প্রধান বিরোধী দলীয় নেতা। ২০০১ সালে আবার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে এবং ২০০৮ সালের নির্বাচনের পর বিরোধীদলীয় নেতা হন খালেদা জিয়া। ২০১৪ সালের নির্বাচন বর্জন করলে বিএনপি সংসদে প্রতিনিধিত্ব হারায়।

এর আগে ২০০৭ সালে তত্ত্ববাধায়ক সরকার এলে ওই বছরের ৩ সেপ্টেম্বর কারারুদ্ধ হন তিনি। পরে ২০০৮ সালের ১১ সেপ্টেম্বর জামিনে মুক্তি পান। বর্তমানে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ৫ বছরের সাজাপ্রাপ্ত হলে পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দীন রোডের কারাগারে আছেন। ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি কারাবন্দী হন তিনি।

খালেদা জিয়া ১৯৯১ সাল থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত চারটি সংসদ নির্বাচনে দেশের বিভিন্ন জেলার ১৮টি সংসদীয় আসন থেকে নির্বাচন করে সবকটিতেই জয়লাভ করেন।

যেভাবে রাজনীতিতে:

খালেদা জিয়া সাবেক সেনাপ্রধান ও রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের স্ত্রী ছিলেন। ১৯৮১ সালে ৩০ এপ্রিল জিয়াউর রহমান চট্টগ্রামে সার্কিট হাউজে কিছু সেনা সদস্যের গুলিতে নিহত হন। স্বামীর মৃত্যুর পরই তিনি বিএনপির রাজনীতিতে যুক্ত হন। রাজনীতিতে আসার আগ পর্যন্ত খালেদা জিয়া একজন সাধারণ গৃহবধু ছিলেন।

খালেদা জিয়া ১৯৮২ সালে ৩ জানুয়ারি বিএনপিতে যোগ দেন। ১৯৮৩ সালের মার্চ মাসে তিনি বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান হন। ১৯৮৩ সালের ১ এপ্রিল দলের বর্ধিত সভায় তিনি প্রথম বক্তৃতা করেন। বিচারপতি সাত্তার অসুস্থ হয়ে পড়লে তিনি দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৮৪ সালের ১০ মে পার্টির চেয়ারপারসন নির্বাচিত হন। সেই থেকে এখন পর্যন্ত তিনি বিএনপির চেয়ারপারসন হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

১৯৮৩ সালে খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে সাত দলীয় ঐক্যজোট গঠিত হয়। একই সময় এরশাদের সামরিক শাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলন শুরু হয়। বেগম জিয়া প্রথমে বিএনপিকে নিয়ে ১৯৮৩ এর সেপ্টেম্বর থেকে ৭ দলীয় ঐক্যজোটের মাধ্যমে এরশাদ বিরোধী আন্দোলন শুরু করেন।

খালেদা জিয়ার দুই ছেলে। বড় ছেলে তারেক রহমান বিএনপির জ্যেষ্ঠ ভাইস চেয়ারম্যান। বর্তমান খালেদা জিয়া জেলে থাকায় তারেক রহমান দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসনের দায়িত্ব পালন করছেন। তাঁর ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকো ২০১৫ সালের ২৪ জানুয়ারি মালয়েশিয়াতে মারা যান।

 

দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র-তৎপরতা বাড়াতেই খালেদা জিয়াকে বিদেশ নিতে চেয়েছিল বিএনপি: তথ্যমন্ত্রী

তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেছেন, দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র-তৎপরতা বাড়াতেই খালেদা জিয়াকে বিদেশ নিতে চেয়েছিল বিএনপি। রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ ...

দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র-তৎপরতা বাড়াতেই খালেদা জিয়াকে বিদেশ নিতে চেয়েছিল বিএনপি: তথ্যমন্ত্রী

খালেদা জিয়াকে নিয়ে মন্ত্রীদের বক্তব্য অমার্জিত: ফখরুল

মন্ত্রীদের উদ্দেশে বিএনপির মহাসচিব বলেন, ‘‌দয়া করে সংযত হোন, দয়া করে আপনাদের কথা একটু কমান। এভরি থিং ইজ বিং নোটেড অ্যান্ড দা পিপলস অব দিস কান্ট্রি উড বি গিভ এন আনসার টু টাইমলি। সময় যখন আসবে তারা তার ...

খালেদা জিয়াকে নিয়ে মন্ত্রীদের বক্তব্য অমার্জিত: ফখরুল

‘আশঙ্কা’ থেকে খালেদা জিয়ার বিষয়ে এমন সিদ্ধান্ত, ধারণা বিএনপির

খালেদা জিয়ার ‍বিদেশযাত্রা আটকে দেওয়ার বিষয়টিকে সরকারের রাজনৈতিক লাভ-ক্ষতির ‘হিসাব–নিকাশ’ বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষক এবং বিএনপির নীতির্ধারণী পর্যায়ের নেতারা। তাঁদের ধারণা, শুরুতে সরকারি মহল হয়তো ...

‘আশঙ্কা’ থেকে খালেদা জিয়ার বিষয়ে এমন সিদ্ধান্ত, ধারণা বিএনপির

করোনা পরীক্ষার মাধ্যমে খালেদা জিয়ার জন্মদিন জানা গেল: কাদের

ওবায়দুল কাদের বলেন, বেগম জিয়ার ম্যাট্রিকুলেশন সনদ অনুযায়ী জন্ম ৯ আগস্ট ১৯৪৫, বিবাহ সনদ ৫ সেপ্টেম্বর ১৯৪৫, পাসপোর্ট সনদ ১৯ আগস্ট ১৯৪৫। আবার দাবি করেন, ১৫ আগস্ট ১৯৪৫ তাঁর জন্মদিন। একজন মানুষের এতগুলো ...

করোনা পরীক্ষার মাধ্যমে খালেদা জিয়ার জন্মদিন জানা গেল: কাদের

বিএনপি ক্ষুব্ধ : ফখরুল

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, সরকার ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিকে ক্ষমা করে বিদেশে পাঠিয়ে দিচ্ছে অথচ বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জন্য তাদের কোনো মানবতা-শিষ্টাচার কাজ করে না।

বিএনপি ক্ষুব্ধ : ফখরুল

খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেওয়ার আবেদন রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত: তথ্যমন্ত্রী

তথ্যমন্ত্রী বলেছেন, খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেওয়ার জন্য বিএনপির আবেদন-নিবেদনের হেতু বোধগম্য নয়।

খালেদা জিয়াকে বিদেশে নেওয়ার আবেদন রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত: তথ্যমন্ত্রী

সরকারের এত বড় দায়ভার নেওয়া উচিত হয়নি: খালেদার আইনজীবী

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার আইনজীবী খন্দকার মাহবুব হোসেন বলেছেন, খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসার বিষয়ে আইন মন্ত্রণালয়ের এ মতামত বেআইনি। খালেদা জিয়ার ক্ষেত্রে কোনো অঘটন ঘটে গেলে তার দায় সরকারের।

সরকারের এত বড় দায়ভার নেওয়া উচিত হয়নি: খালেদার আইনজীবী

যে কারণে খালেদা জিয়ার ভাইয়ের আবেদনটি মঞ্জুর হলো না

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া অসুস্থ হওয়ায় এখন রাজধানীর এভারকেয়ার হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন। সেখানে করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) ভর্তি আছেন সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী।

যে কারণে খালেদা জিয়ার ভাইয়ের আবেদনটি মঞ্জুর হলো না

খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসায় আইন মন্ত্রণালয়ের ‘না’

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য বিদেশে নেওয়ার আবেদনের বিষয়ে আইন মন্ত্রণালয় ‘না’ করেছে। সাজাপ্রাপ্ত কারও এ ধরনের সুযোগ নেই বলে তারা মতামত দিয়েছে।

খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসায় আইন মন্ত্রণালয়ের ‘না’

খালেদা জিয়াকে নিয়ে শিষ্টাচার বজায় রেখে কথা বলার অনুরোধ ফখরুলের

মির্জা ফখরুল বলেন, খালেদা জিয়াকে নিয়ে সরকারের কয়েকজন মন্ত্রী আপত্তিকর ও বিদ্রূপাত্মক কথা বলছেন, যা শোভনীয় নয়। এতটুকু সৌজন্যবোধ তাঁরা দেখান না। তিনি অনুরোধ করে বলেন, ‘শালীনতা ও রাজনৈতিক শিষ্টাচার বজায় ...

খালেদা জিয়াকে নিয়ে শিষ্টাচার বজায় রেখে কথা বলার অনুরোধ ফখরুলের
আরও