নরেন্দ্র মোদি

নন্দিত ও নিন্দিত- একাধারে এ দুটো শব্দই প্রয়োগ করা হয় নরেন্দ্র মোদির বিষয়ে। জাতীয় নির্বাচনে জয়ী হয়ে ২০১৪ সালের মে মাসে ভারতের ১৬তম প্রধানমন্ত্রী হিসেবে তিনি দায়িত্ব নেন। এর আগে প্রাণবন্ত, দক্ষ ও সক্রিয় রাজনীতিবিদ হিসেবে পুরস্কার স্বরূপ তিনি ২০০১ সালে গুজরাট রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর পদ পান। মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে দেশের পশ্চিমাঞ্চলের এই রাজ্যটিকে অর্থনৈতিকভাবে শক্তিশালী হিসেবে গড়ে তুলতে তাঁর ভূমিকা প্রশংসিত হয়। তবে একই সময়ে গুজরাটে দাঙ্গার কারণে তিনি চরমভাবে নিন্দিত হন। বলা হয়, তাঁর ইন্ধনেই ২০০২ সালে ধর্ম নিয়ে দাঙ্গা বাঁধে গুজরাটে। এতে এক হাজারেরও বেশি মানুষ নিহত হয়, যার অধিকাংশই মুসলিম। তবে বরাবরই এ অভিযোগ অস্বীকার করে আসছেন তিনি। 
ওই দাঙ্গার পর নরেন্দ্র মোদিকে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় বর্জন করে। যুক্তরাষ্ট্র তাঁকে ভিসা দেওয়া থেকে বিরত থাকে। যুক্তরাজ্য তাঁর সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করে। তবে এক দশক পর পরিস্থিতি আর তেমন নেই। বিতর্কিত এই রাজনীতিবিদ মূল ধারার রাজনীতিতে পুর্নভিবাব ঘটান। কেন্দ্রীয় ক্ষমতায় আসার পর থেকে ভাগ্যও তাঁর সহায় থেকেছে। নিত্য পণ্য বিশেষ করে তেলের সস্তা মূল্যের কারণে তিনি প্রশংসা পেতেই পারেন। দেশের অবকাঠামোগত উন্নয়ন, স্বচ্ছ ও আধুনিক ভারত গড়তে তাঁর উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ রয়েছে। তাঁর সময়ে ভারতের পররাষ্ট্রনীতি আরও শক্তিশালী হয়েছে। বিশেষ করে জাপান, অস্ট্রেলিয়া, ইসরায়েল, যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের সঙ্গে সম্পর্ক আরও মজবুত করতে তিনি রীতিমতো দৌড় ঝাঁপ করেছেন।
 
 রাজনীতির একদম শীর্ষে মোদির আরোহণ বিস্মিত করে অনেককে। সমালোচকেরা বলতেন, গুজরাট দাঙ্গার কারণে মোদি কখনো প্রধানমন্ত্রী হতে পারবেন না। ওই ঘটনার ঝাপটা থেকে তিনি বাঁচতে পারলেও তাঁর ঘনিষ্ঠ সহযোগী মায়া কোদনানির ২৮ বছরের জেল হয়। দাঙ্গার ঘটনায় নরেন্দ্র মোদিকে কখনো অনুশোচনা করতে বা ক্ষমা চাইতে দেখা যায়নি। সহিংসতা অব্যাহত থাকলে অনেক মুসলিম বাড়িঘর ছেড়ে গুজরাটের সবচেয়ে বড় শহর ও বাণিজ্যিক রাজধানী আহমেদাবাদের কাছে ঘেট্টসে বসবাস শুরু করেন। বিশ্লেষকদের মতে, কট্টরপন্থী হিন্দু সংগঠন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের (আরএসএস) সুনজরে থাকায় মোদির গায়ে কখনো আঁচড় পড়েনি। গুজরাটে আরএসএসের শক্ত ভিত্তি রয়েছে। ১৯২০ সালে প্রতিষ্ঠিত আরএসএসের মূল লক্ষ্য হচ্ছে ভারতকে হিন্দু রাষ্ট্র হিসেবে গড়ে তোলা। মোদির দল বিজেপির সঙ্গে এর সুসম্পর্ক রয়েছে। ১৯৮০ সালে বিজেপি গুজরাটে যোগ দেওয়ার আগে তিনি আরএসএসে প্রশিক্ষিত প্রচারক হিসেবে বহু বছর কাজ করেছেন। সুবক্তা, গোপনীয়তা রক্ষা ও দুর্দান্ত সংগঠক হিসেবে দলে তাঁর খ্যাতি রয়েছে।  ২০০১ সালের জানুয়ারিতে ভূমিকম্পে গুজরাটে প্রায় ২০ হাজার মানুষের প্রাণহানির ঘটনায় মোদির পূর্বসূরিরা ক্ষমতা ছাড়তে বাধ্য হন। ওই সময় রাজনীতির মাঠে বড় ধরনের সুযোগ পান নরেন্দ্র মোদি। ২০০১ সাল থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত টানা চার বার তিনি বিজেপির প্রার্থী হিসেবে গুজরাটের মুখ্যমন্ত্রী হন।     
 
নরেন্দ্র মোদির ব্যক্তিগত জীবনও মসৃণ নয়। সমালোচকেরা বলেন, তিনি স্ত্রী যশোদাবেনকেও বঞ্চিত করেছেন। ১৭ বছর বয়সে পরিবারের পছন্দে তিনি যশোদাবেনকে বিয়ে করেন। তবে এই দম্পতি খুব কম সময়ই একসঙ্গে সংসার করেছেন। তাঁর এই ব্যক্তি জীবন নিয়ে প্রশ্ন করা হলে বরাবরই তিনি তা এড়িয়ে গেছেন। জাতীয় নির্বাচনের সময় তিনি প্রথমবার প্রকাশ্যে বিয়ের কথা স্বীকার করেন। 
 
 
 গুজরাটের মেহসানা জেলায় ছোট্ট একটি গ্রাম ভাদনগরে জন্ম নেন নরেন্দ্র মোদি। ভারত স্বাধীন হওয়ার তিন বছর পর ১৯৫০ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর তিনি জন্ম নেন। তাঁর বাবার নাম দামোদারদাস মোদি এবং মায়ের নাম হিরাবা মোদি। ছয় ভাই বোনের মধ্যে তিনি ছিলেন তৃতীয়। দারিদ্র্যের সঙ্গে লড়াই করে তিনি বড় হন। সেই অবস্থা থেকে তাঁর উত্থান রূপকথাকেও হার মানায়। ভাদনগর রেল স্টেশনে তাঁর বাবার চায়ের ছোট দোকান ছিল। ছেলেবেলায় পড়ালেখার পাশাপাশি বাবার সঙ্গে তিনিও চা বিক্রি করেছেন। পড়াশোনা ও বিতর্কে  খুব আগ্রহ ছিল তাঁর। এমনও হয়েছে, বিদ্যালয়ের গ্রন্থাগারে ঘণ্টার ঘণ্টা তিনি পড়াশোনা করেছেন। গুজরাট ইউনিভার্সিটি থেকে তিনি রাষ্ট্রবিজ্ঞানে এম এ করেন। 

 

ভারতের রাজনীতি

মমতার সলতে পাকানো পণ্ডশ্রম হবে, যদি না...

অমিত শক্তিধর বিজেপিকে পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনে রুখে রাজ্যের হাল আরও একবার হাতে নিয়ে নিজের ভাবমূর্তিকে যেভাবে উজ্জ্বলতর করেছেন, তাতে মনে করছেন, সর্বভারতীয় নেতৃত্বের শূন্যতা মেটাতে তিনি উপযুক্ত।

মমতার সলতে পাকানো পণ্ডশ্রম হবে, যদি না...

সহযোগিতার পরিধি বাড়াতে ভারত সফরে ব্লিঙ্কেন

বুধবার ব্লিঙ্কেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী, নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল এবং সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলবেন।

সহযোগিতার পরিধি বাড়াতে ভারত সফরে ব্লিঙ্কেন

মোদির সঙ্গে বৈঠক

পশ্চিমবঙ্গের নাম ‘বাংলা’ রাখার প্রস্তাব আবার তুললেন মমতা

দুই বছর পর দিল্লি সফরে গেছেন মমতা। তার চেয়েও বড় কথা, বিধানসভার ভোটে বিজেপিকে বিপর্যস্ত করার পর এই প্রথম প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে মুখোমুখি আলোচনায় বসলেন মমতা।

পশ্চিমবঙ্গের নাম ‘বাংলা’ রাখার প্রস্তাব আবার তুললেন মমতা

মতামত

আফগানিস্তানে পালাবদলের সুযোগে ভারত বিরোধী ‘নতুন কোয়াড’ গঠনের পথে চীন?

যুক্তরাষ্ট্রের সেনা প্রত্যাহারের পর টালমাটাল আফগানিস্তানের ভবিষ্যৎ নির্ধারণে তালেবানের ভূমিকা নিয়ে মস্কো একধরনের ঐকমত্য তৈরিতে আগ্রহী। তাতে সায় রয়েছে চীন ও ইরানের। তিন দেশের মূল লক্ষ্য, তালেবানি ...

আফগানিস্তানে পালাবদলের সুযোগে ভারত বিরোধী ‘নতুন কোয়াড’ গঠনের পথে চীন?

কৃষকমৃত্যু কত, সরকার তা–ও জানে না

অক্সিজেনের অভাবে দেশে কোভিডে আক্রান্তের মৃত্যুর সংখ্যা যেমন অজানা, কেন্দ্রীয় সরকার তেমন জানে না কতজন আন্দোলনকারী কৃষকের মৃত্যু হয়েছে। দেশের কৃষিমন্ত্রী নরেন্দ্র সিং টোমার সংসদে এই তথ্য জানিয়েছেন।

কৃষকমৃত্যু কত, সরকার তা–ও জানে না

পেগাসাস তদন্তে ভারত নারাজ

পেগাসাসকাণ্ড বা ফোনে আড়িপাতার অভিযোগের কোনোরকম তদন্তের নির্দেশ না দেওয়ার প্রশ্নে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার অনড়।

পেগাসাস তদন্তে ভারত নারাজ

পেগাসাস নিয়ে মোদির কাছে জবাব চাইলেন মমতা

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, হিটলারি কায়দায় মানুষকে তারা দমিয়ে রাখতে পারবে না। তারা কাউকে কথা বলতে দেবে না, বন্দী করতে চায় মানুষের কণ্ঠ। এভাবে তো দেশ চলতে পারে না

পেগাসাস নিয়ে মোদির কাছে জবাব চাইলেন মমতা

মোদিবিরোধীদের এক মঞ্চে আনলেন মমতা

আজ বুধবার ছিল তৃণমূল কংগ্রেসের শহীদ দিবস। ১৯৯৩ সালের এই দিনে পুলিশের গুলিতে দলটির কয়েকজন কর্মী নিহত হন। প্রতিবছরই এদিনে শহীদ দিবস পালন করেন মমতা। আজ শহীদ দিবসের আয়োজনে মোদিবিরোধী রাজনীতিকদের একসঙ্গে ...

মোদিবিরোধীদের এক মঞ্চে আনলেন মমতা

পেগাসাস ইস্যুতে ভারতীয় পার্লামেন্টে তদন্তের দাবি

মঙ্গলবার অধিবেশন চলাকালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে স্লোগান দেন বিরোধীদলীয় সাংসদেরা। গোয়েন্দাবৃত্তির অভিযোগ এনে এ ঘটনায় একটি স্বাধীন তদন্ত কমিটি গঠনের দাবি জানান তাঁরা

পেগাসাস ইস্যুতে ভারতীয় পার্লামেন্টে তদন্তের দাবি

মুম্বাইয়ে বৃষ্টি ও ভবন ধসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩২

প্রবল বৃষ্টি ও ভারতের মুম্বাইয়ের ভবন ধসে মৃত ব্যক্তির সংখ্যা বেড়ে ৩২–এ পৌঁছেছে। ছয় জনের বেশি আহত হয়েছেন। ভারতের টাইমস অব ইন্ডিয়ার খবরে এ তথ্য জানানো হয়।

মুম্বাইয়ে বৃষ্টি ও ভবন ধসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৩২
আরও