মোহাম্মদ সালাহ

মোহাম্মদ সালাহ মিসর জাতীয় দলের ফরোয়ার্ড। মো সালাহ নামেই বেশি পরিচিত এই ফরোয়ার্ড ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের ক্লাব লিভারপুলে খেলেন। বিশ্বকাপে মিসরের মূল ভরসা সালাহ ১৯৯২ সালের ১৫ জুন জন্মগ্রহণ করেন। রাশিয়াতে নিজের জন্মদিনেই উরুগুয়ে ম্যাচ দিয়ে বিশ্বকাপে অভিষেক হচ্ছে সালাহর। এফসি বাসেলের হয়ে দুটি সুইস সুপার লিগ জয় করা সালাহ ক্যারিয়ারে সেরা সময় কাটাচ্ছেন লিভারপুলে। ২০১৭-১৮ মৌসুমে লিভারপুলে যোগ দিয়ে অভিষেক মৌসুমে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড গড়েছেন। প্রথম কোনো খেলোয়াড় হিসেবে এক মৌসুমেই তিনবার মাসের সেরা খেলোয়াড় হয়েছেন। ২০১৭ / ১৮ মৌসুমে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হয়েছেন সালাহ। মৌসুম শেষ হওয়ার আগেই প্রিমিয়ার লিগের এক মৌসুমে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ডও ছুঁয়েছেন সালাহ।

মিসরের বাসইয়ুন শহরের নাগরিগ গ্রামে জন্ম নেওয়া সালাহর ফুটবলে হাতেখড়ি ভাইয়ের সঙ্গে খেলে। কিন্তু ফুটবলে নিজের প্রতিভা আলোর মুখ দেখাতে কঠিন পরিশ্রমের পথ বেছে নিয়েছিলেন সালাহ। গ্রাম থেকে আধা ঘণ্টা দূরের এক ক্লাবে নাম লেখান। এতেও তৃপ্ত না হয়ে দেড় ঘণ্টা দূরে তান্তার আরেক ক্লাবে যোগ দিয়েছেন। ১৪ বছর বয়সেই যোগ দিলেন কায়রোর আরব কন্ট্রাক্টরসে (এল মোকাওলুন)। গ্রাম থেকে চার থেকে সাড়ে চার ঘণ্টা পথ পাড়ি দিয়ে ক্লাবের অনুশীলনে যেতেন। কখনো তিনটি, কখনো চার-পাঁচটি বাস বদলাতে হতো। সকাল সাতটায় বিদ্যালয়ে ঢুকে নয়টায় ক্লাবের উদ্দেশ্যে বের হয়েছে। অনুশীলন শেষে ছয়টা নাগাদ গ্রামের উদ্দেশ্যে আবার ফিরতি যাত্রা। রাত ১০ টা-সাড়ে ১০টা নাগাদ বাড়িতে পৌঁছানো। পরদিন সকালে আবারও একই রুটিন। এভাবেই চলেছে তাঁর কৈশোর। এরই ফল পেয়েছেন মাত্র ১৭ বছর বয়সে পেশাদার ফুটবলে অভিষিক্ত হয়ে।

দুই বছর মোকাওলুনে কাটিয়ে ২০ বছর বয়সেই ইউরোপে চলে আসেন সালাহ। এফসি বাসেলের হয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগে দুর্দান্ত খেলে ইউরোপের বড় বড় ক্লাবগুলোর নজরে পড়েন। ২০১৪ সালে মাত্র ১১ মিলিয়ন পাউন্ডে তাঁকে দলে টানে চেলসি। কিন্তু দেড় মৌসুমে মাত্র তিন গোল এবং খেলার সুযোগ না পেয়ে ইতালিতে চলে যান সালাহ। রোমার হয়ে দুর্দান্ত দুই মৌসুম আবারও সালাহকে পাদপ্রদীপের আলোয় নিয়ে আসে। দুর্দান্ত গতি ও ড্রিবলিং ক্ষমতার কারণে ইতালিতে মিসরের মেসি নামে ডাকা হতো তাঁকে। তিন বছর আগে তাঁকে কেনার সুযোগ হাতছাড়া করা লিভারপুল ২০১৭ সালে ৪২ মিলিয়ন ইউরোতে আবার ইংল্যান্ডে ফিরিয়ে আনে সালাহকে। লিভারপুলের হয়ে অভিষেকেই গোল করে সিদ্ধান্তটা সঠিক প্রমাণ করেছেন মিসরীয় ফরোয়ার্ড। সালাহর খেলায় মুগ্ধ লিভারপুল সমর্থকেরা তাঁকে নিয়ে গান বেঁধেছেন।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে প্রত্যাবর্তনের মৌসুমেই রেকর্ড ভাঙাগড়ার খেলায় মেতেছেন সালাহ। এক মৌসুমে সবচেয়ে বেশি ম্যাচে গোলের রেকর্ড গড়েছেন। আফ্রিকান খেলোয়াড় হিসেবে সবচেয়ে বেশি গোলের রেকর্ডটাও তাই হয়ে গেছে সেই ফাঁকে। গোল করায় বাঁ পা বেশি প্রিয় হওয়ায় রবি ফাওলারের বাঁ পায়ে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ডটাও দখল করেছেন সালাহ। অভিষেক মৌসুমে লিভারপুলের হয়ে সর্বোচ্চ গোল তাঁর। এক মৌসুমে সবচেয়ে বেশি ম্যাচে গোলের রেকর্ডটাও মৌসুম শেষ হওয়ার আগেই করে ফেলেছিলেন। শুধু ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ নয়, ক্লাবের হয়ে ইউরোপেও রেকর্ড গড়ে চলেছেন সালাহ। চ্যাম্পিয়নস লিগে আফ্রিকান খেলোয়াড় হিসেবে সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড এখন মিসরীয় ফরোয়ার্ডের।

তবে এ সব রেকর্ড কোনোটাই খুব একটা গুরুত্ব পাবে না সালাহর কাছে। রাশিয়া বিশ্বকাপে স্বাগতিক দলের গ্রুপে পড়েছে সালাহর মিসর। ‘এ’ গ্রুপে আরও আছে দুবারের বিশ্বকাপজয়ী উরুগুয়ে ও সৌদি আরব। প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের দ্বিতীয় পর্বে ওঠার স্বপ্ন দেখছে মিসর। সে স্বপ্নটা অর্জনে দেশটি তাকিয়ে আছে সালাহর বাঁ পায়ের দিকে।

ব্যক্তিগত জীবনে এক সন্তানের জনক সালাহ। ২০১৩ সালে বিয়ে করা সালাহ পরের বছর এক কন্যার পিতা হয়েছেন। পবিত্র নগরী মক্কার নামে কন্যার নাম দেওয়া সালাহ ইসলাম ধর্মচর্চা করেন নিয়মিত।

 

পবিত্র রমজানের শুভেচ্ছা এমবাপ্পে, সালাহ, ওজিলদের

দোরগোড়ায় পবিত্র রমজান। সে উপলক্ষে গোটা বিশ্বের মুসলিম উম্মাহর প্রতি শুভেচ্ছা জানিয়েছেন একাধিক ফুটবল তারকা।

রমজানের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন তাঁরা।

রামোস-সালাহ যুদ্ধের দ্বিতীয় পর্ব হচ্ছে না

সামনের দুই সপ্তাহের মধ্যে রিয়াল মাদ্রিদের মহাগুরুত্বপূর্ণ তিনটি ম্যাচ। যে তিন ম্যাচের ফলাফলের ওপর নির্ভর করবে এ মৌসুমে রিয়াল আদৌ কিছু জিততে পারবে কি না। এ অবস্থায় রিয়ালকে অকূল পাথারে ফেলে দিলেন দলের ...

রামোস-সালাহ যুদ্ধের দ্বিতীয় পর্ব হচ্ছে না

রামোসের কথা ভাবছেনই না সালাহ

মোহাম্মদ সালাহ আর সের্হিও রামোস—নাম দুটি পরপর উচ্চারিত হলেই মনে আসে ২০১৮ চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালের সে ঘটনার কথা। যেখানে রামোসের বাজে এক চ্যালেঞ্জে মাঠ ছাড়তে হয়েছিল সালাহকে।

২০১৮ চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালে রামোসের ট্যাকলে সালাহর পড়ে যাওয়ার মুহূর্ত।

চ্যাম্পিয়নস লিগের ড্র

প্রতিশোধ নেওয়ার সুযোগ পেলেন নেইমার-সালাহ

চ্যাম্পিয়নস লিগের ড্র হয়ে গেছে আজ। শেষ আটে কে কার বিপক্ষে খেলবে, তা নিশ্চিত হয়ে গেছে।

এবার কি পারবেন নেইমার?

সাবেক ক্লাবের বুকে ‘ছুরি’ চালালেন রোনালদো-সালাহর সতীর্থ

লিগ টেবিলে অন্তত চতুর্থ স্থানে যাওয়ার জন্য এখন ছুটছে গতবারের চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল। লিগ শিরোপা জেতার আশা করে লাভ নেই, তাই চতুর্থ স্থানে থেকে আগামী মৌসুমের চ্যাম্পিয়নস লিগে জায়গা করে নেওয়াই লক্ষ্য।

সাবেক ক্লাবের বুকে ‘ছুরি’ চালালেন রোনালদো-সালাহর সতীর্থ

সালাহর প্রতি হিংসা থেকেই তাঁর সতীর্থের এই ‘সততা’ দেখানো?

লিভারপুলের জার্সিতে আলো ছড়ালেও পরে লিভারপুলের চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে খেলেছেন তিনি। লিভারপুলের অনেক সমর্থকই তাই তাঁকে নিজেদের একজন বলে মেনে নিতে চান না। তাঁরই এমন মন্তব্য!  

সালাহর প্রতি হিংসা আছে মানের?

মা-হারা ক্লপকে স্বস্তি দিলেন সালাহ-মানে

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে লিভারপুলের অবস্থা তেমন ভালো নয়। কালই পয়েন্ট তালিকার ৬ নম্বরে নেমে গেছে তারা। এর মধ্যেই সমর্থকদের দু-দণ্ড শান্তি দিলেন মোহাম্মদ সালাহ আর সাদিও মানে।

মা-হারা ক্লপকে স্বস্তি দিলেন সালাহ-মানে

‘সুপার স্মার্ট’ সালাহতে মুগ্ধ ক্লপ

ইংলিশ লিগের ম্যাচে গত রাতে খেলতে নেমেছিল লিভারপুল আর ওয়েস্ট হাম ইউনাইটেড। ওয়েস্ট হামকে ৩-১ গোলে হারিয়ে এসেছে বর্তমান লিগ চ্যাম্পিয়নরা

জোড়া গোল করেছেন সালাহ।

যেন হাঁপ ছেড়ে বাঁচল লিভারপুল

নতুন বছর শুরুর পর অন্যান্য শিরোপাপ্রত্যাশীরা যেখানে লিগ ম্যাচে একের পর এক গোল করে যাচ্ছিল, লিভারপুলের আক্রমণভাগে তখন চৈত্রের খরা। খরা কেটেছে অবশেষে

মানেদের কল্যাণে গোলখরা কাটিয়েছে লিভারপুল

নিজেদের দুর্গ অজেয় রাখতে পারল না লিভারপুল

লিগ জয়ের দৌড়ে ভালোভাবে থাকার জন্য জয়টা বড্ড দরকার ছিল লিভারপুলের। কিন্তু কিসের কী! ম্যাচ হারের সঙ্গে সঙ্গে গৌরবের একটা রেকর্ডও হাতছাড়া হয়ে গেল বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের

এই অনুভূতি বহুদিন পায়নি লিভারপুল
আরও